Bangla Serial

ভুয়ো সংস্থার ফাঁদে পিকলু, ভাইয়ের কথা মেনে তাকেই বিপদে ফেলল পর্ণা! নিম ফুলে দারুণ চমক!

জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় ধারাবাহিক নিম ফুলের মধুর (Neem Phooler Madhu) কাহিনীতে আবার আসছে নতুন মোড়। ইতিমধ্যেই বর্ষাকে সঙ্গে নিয়ে নবনীতা আর অর্ণবের চলে গেছে তাদের বাড়ি বর্ষাকে নিজের থেকে দূরে যেতে দেখে খুব ভেঙে পড়েছে পিকলু। পর্ণার মুখ থেকে সবটা শুনে তার বুদ্ধির প্রশংসা করে সৃজন। সৃজন বলে পর্ণা না থাকলে হয়তো বর্ষা কোনদিনও তার শশুরবাড়ি যেতে পারত না। তখন পর্ণাও বলে বর্ষার জন্য তারও খুব মন খারাপ লাগছে। সৃজন বলে “কি করা করা যাবে এটাই নিয়ম।”

তখন পর্ণা সৃজনকে জানায় “বর্ষা চলে যাওয়াতে পিকলু খুব কষ্ট পেয়েছে। ও যদি আগে সবটা বলত তাহলে হয়তো এটা হত না।” তখন সৃজন বলে “কি আর কথা যাবে। তুমি তো অনেক চেষ্টাই করেছিলে।” তখন সৃজন পর্ণাকে এও বলে “তাও তো তুমি নিজের ভাইয়ের কথা না ভেবে আমার বোন, আমার পরিবারের কথা ভেবেছ। আমি হলে নিজের ভাইয়ের কথাই আগে ভাবতাম।” কিন্তু তখনই আবার সৃজন সংশয় প্রকাশ করে বলে “এবার বর্ষা ভালো থাকলেই ভালো। আমার নবনীতা সরকারকে ভালো মনে হল না। খুবই জেদি আর কিছুই বোঝে না উল্টো কথা বলে।”

পর্ণা তখন সৃজনকে বলে তারও এই একই ভয় লাগছে। ওদিকে শশুরবাড়িতে বর্ষাকে বরণ করে নেন নবনীতা। কিন্তু দুধ আলতায় পা দিয়ে বর্ষা প্রথমে ডান পা এগিয়ে দিতে গেলে নবনীতা তাকে আবার অপমান করে। যদিও বর্ষা কোন উত্তর দেয়না। তারপর সমস্ত প্রতিবেশিরা চলে গেলে অয়ন ফোন করে নবনীতাকে বলে দেয় সবটা। সে বলে তারা যাতে বর্ষাকে নিয়ে যায় তাই পর্ণা এইসবটা করেছে। সেই কথা শুনে খুব রেগে যান নবনীতা আর মনে মনে বলেন তিনি পর্ণাকে ছাড়বেন না।

আরও পড়ুন- জোড়াখুনের তদন্তে এবার জ্যাস সান্যাল! অবশেষে জ্যাসকে মুখার্জী বাড়ির বউ বলে মেনে নিল বৈদেহি! জমজমাট পর্ব আসছে

ওদিকে পিকলু এখান থেকে যাওয়ার জন্য তার বন্ধুকে ফোন করে চাকরির খোঁজ করে। তার সঙ্গে কথা বলে পিকলু পর্ণা আর সৃজনকে জানায় তার একটা চাকরির ইন্টারভিউ আছে সে ইন্টারভিউটা দিতে চায়। কিন্তু সৃজন তাকে বাধা দিয়ে বলে সে যে গান নিয়ে এগোতে চেয়েছিল সেটার কি হবে। তখন পর্ণা সৃজনকে বলে পিকলু যা করছে করতে দিতে। কাজের মধ্যে থাকলে ও ভালো থাকবে। তখন পর্ণা বলে সে আর সৃজন পিকলুকে ইন্টারভিউতে নিয়ে যাবে। পরেরদিন সকালে পর্ণা, পিকলু আর সৃজন বেরিয়ে পড়ে ইন্টারভিউর জায়গার উদ্দেশ্যে।

ওখানে গিয়ে সবটা দেখে ভালো লাগেনা পর্ণার। সে সৃজন জানায় তার জায়গাটা সুবিধার লাগছে না। সেরকমটা বলেছিল জায়গাটা সেরকম নয়। এই কথা শুনে সৃজন বলে সবটা ভেবে করতে হবে। ঠিকঠাক না লাগলে পিকলুকে যেতে দেওয়া যাবে না। তখনই সেখানে ইন্টারভিউ দিতে আসা লোকেদের সঙ্গে কথা বলতে শুরু করে পর্ণা। তাদের সঙ্গে কথা বলে পর্ণা জানতে পারে এখানে শুধু ছেলেদের ডাকা হয়েছে আর শুধু সাইন্সের ছাত্রদের। এটা শুনে খটকাটা আরও বেড়ে যায় পর্ণার। তাহলে কি মনে হয় আপনাদের পিকলু কি এবার ফেসেছে ভুয়ো সংস্থার জাতাকলে?

Piya Chanda