Bangla Serial

শিমুলের জোড়া বিপদ! শতদ্রু জেলে যেতেই শিমুলের ওপর ক্ষাপ্পা শতদ্রুর মা

জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় ধারাবাহিক কার কাছে কই মনের কথায় (Kar kache Koi Moner Kotha) চলছে একের পর এক মোড় ঘোরানো পর্ব। প্রতীক্ষা একের পর এক ঝড় তুলছেন শিমুলের জীবনে। প্রথমে শিমুলকে জেলে পাঠালো পরাগের পরিবারের লোকজন। শিমুলকে বাঁচাতে গিয়ে আবার অন্য বিপত্তি ঘটলো শতদ্রুর জীবনে। শতদ্রু নিজের বিয়ের আশীর্বাদ ভেঙে চলে যায় শিমুলকে বাঁচাতে। তাকে ক্ষিপ্ত হয় শতদ্রুর বাগদত্তা রূপরেখা।

ক্ষিপ্ত হয়ে সে পুলিশকে ফোন করে। পুলিশ আসতেই রূপরেখা পুলিশের কাছে শতদ্রুর নামে নালিশ জানিয়ে বলে ওঠে শতদ্রু একজন ঠক, তাকে বিয়ের প্রতশ্রুতি দিয়ে আশীর্বাদের দিন বিয়ে ভেঙে পুরনো প্রেমিকার সঙ্গে ফেরে যেতে চাই শতদ্রু তখন শতদ্রুর মা রূপরেখাকে অনুরোধ করে জন্য সে শতদ্রুকে পুলিশে না দেয়, শতদ্রু তাকেই বিয়ে করবে তবে রূপরেখা কোনও কথা শোনে না।

শতদ্রু কানের কাছে গিয়ে রূপরেখা বলে ওঠে সে শতদ্রুকে কিছুতেই এত সহজে ছেড়ে দেবে না। সে অন্য মেয়েদের মতো খেলনা নয়। শতদ্রু যা করেছে তাকে তার দাম দিতেই হবে। তখন শতদ্রুর মা শতদ্রুকে রূপরেখাকে বিয়ে করে নেবার কথা বলে কিন্তু শতদ্রু নাকোচ করে দেয়। সে জানায় সে ভুলকে কখনই সমর্থন করবে না।

তখন রূপরেখার কথায় পুলিশ ধরে নিয়ে যায় শতদ্রুকে। কান্নায় ভেঙে পড়ে শতদ্রুর মা। খারাপ বলতে থাকে শিমুলকে। তিনি বলেন আজ শিমুলের জন্যই তার ছেড়েই এই পরিস্থিতি, তিনি কিছুতেই শিমুলকে শতদ্রুর জীবনে মেনে নেবেন না। শিমুলকে শতদ্রুর স্ত্রী বলে মানবে না তিনি কিছুতেই। তখন শতদ্রু বোন তাকে বোঝায় যে তিনি এখন এসব চিন্তা না করে শতদ্রুর জন্য উকিল খোঁজেন।

তারপর তারা পৌঁছন থানায় উকিল নিয়ে। শতদ্রু তিনি শিমুলের কথা বলে বলেন যে শিমুল তার জন্য ঠিক মেয়ে নয়, কিন্তু শতদ্রু তাকে জানিয়ে দেন যে সে কোনও ভাবেই শিমুলের হাত ছাড়বে না। তবে এরপর শতদ্রু মা শিমুলের জন্য কী ক্ষতি করবেন? তিনি কি কখনও মেনে নেবেন শিমুলকে? দেখার জন্য অপেক্ষা করতে হবে পরবর্তী পর্বের জন্য।

 

Joyee Chowdhury

কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগ-এ স্নাতকোত্তর। বিনোদন ও সংস্কৃতি বিভাগই মূল ক্ষেত্র। আমার লেখা আরও পড়তে এখানে ক্লিক করুন।