জয়েন গ্রুপ

বাংলা সিরিয়াল

এই মুহূর্তে

Bangla Serial

বিয়ের ৯ বছর পর স্বামীর জঘন্য স্বীকারোক্তি, সিনেমায় ব্যাকআপ ডান্সার থেকে অভিনেত্রী, ব্যক্তিগত জীবনের কথা জানালেন গীতার মা ওরফে অভিনেত্রী মল্লিকা বন্দ্যোপাধ্যায়

বাংলা ধারাবাহিকের জগতে অন্যতম খ্যাতনামা অভিনেত্রী তিনি। একের পর এক ধারাবাহিকে অভিনয় করে দর্শকদের মন জয় করেছেন তিনি। ধারাবাহিকে পার্শ্ব চরিত্রে অভিনয় করলেও তাঁর অভিনয়ের দক্ষতা নজর কেড়েছে দর্শকদের। বর্তমানে ব্লুজ প্রোডাকশনের দুটি ধারাবাহিক যোগমায়া এবং গীতা LLBতে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। ধারাবাহিকে গীতার মায়ের চরিত্রে ইতিমধ্যেই দর্শকদের কাছে দারুণ প্রশংসিত হয়ে উঠেছেন অভিনেত্রী মল্লিকা ব্যানার্জী (Mallika Banerjee)

কোন কোন ধারাবাহিকে কাজ করেছেন অভিনেত্রী মল্লিকা ব্যানার্জী

তবে যোগমায়া এবং গীতা LLB ছাড়াও আরও বেশ কয়েকটি ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন তিনি। সাহেবের চিঠি, সর্বজয়া, মেমবউ, জীবন সাথী, যমুনা ঢাকি, জাহানারা, গোয়েন্দা গিন্নী সহ একাধিক ধারাবাহিকে তাঁকে দেখেছেন দর্শকরা। তবে অভিনেত্রীর ব্যক্তিগত জীবনও ধারাবাহিকের থেকে কম ছিল নয়। নানা ঘাত-প্রতিঘাতের মধ্যে দিয়েই বয়ে গেছে তাঁর জীবন। স্ট্রাগেল শুরু হয় ছোটবেলা থেকে। কেন্দ্রীয় সরকারের চাকুরিরত বাবা হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়ায় অভিনেত্রীর সংসারে নেমে আসে বিপর্যয়।

Mallika Banerjee: রাজর্ষি দে'র আগামী ছবিতে শক্ত চরিত্রে 'সাহেবের চিঠি'র বিদীপ্তা

ক্লাস ৮ থেকে শুরু হয় সংগ্রাম, অন্য একজনের হাত ধরে চলে গেছে মল্লিকা ব্যানার্জীর স্বামী

তখন তিনি অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী। বাড়িতে দুই বোন। মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিলেন আত্মীয়-স্বজনরাও। সেই সময় নাচ শিখিয়েই উপার্জন শুরু করেন অভিনেত্রী। একটু বড় হতেই নাচের অনুষ্ঠান, সিনেমায় ব্যাকআপ ডান্সার হিসেবে কাজ শুরু করেন। শুরু হল পথ চলা। খুব ছোট বয়সে ভালোবাসার মানুষের হাত ধরে এক কাপড়ে পাড়ি দিয়েছিলেন কলকাতায়। খুব অল্প বয়সেই অভিনেত্রীর কোল আলো করে আসে তাঁর কন্যা সন্তান। কিছু পিছন ছাড়েনি সমস্যা। একদিন স্বামী এসে জানালেন তিনি অন্য একজনকে ভালবাসেন।

Mallika Banerjee: রাজর্ষি দে'র আগামী ছবিতে শক্ত চরিত্রে 'সাহেবের চিঠি'র বিদীপ্তা

দ্বিতীয় সম্পর্কে হয়েছেন নির্যাতনের শিকার হয়েছেন অভিনেত্রী মল্লিকা ব্যানার্জী

৯ বছরের মেয়ে, দুই বোন আর মাকে নিয়ে আবার শুরু হল সংগ্রাম। কখনও ছোট ছোট চরিত্র, কখনও জুনিয়ার আর্টিস্ট হিসেবে অভিনয় শুরু করেন তিনি। এরপরই আসে বড় ব্রেক। সোহাগী সিঁদুর ধারাবাহিকের মাধ্যমে ইন্ডাস্ট্রিতে জায়গা করেছিলেন তিনি। কিন্তু তবুও শেষ হয়নি লড়াই। তারপর আবার জীবনে এসেছিল আরেকজন মানুষ। বিশ্বাস করে হাত ধরেছিলেন অভিনেত্রী। ছেড়েছিলেন অভিনয়। কিন্তু সেই সম্পর্কেও মেনেনি সুখ, মারধর, মানসিক নির্যাতনের শিকার হন অভিনেত্রী। বেরিয়ে আসেন সম্পর্ক থেকে।

আরো পড়ুন: দুঃসংবাদ, শুরু হতে না হতেই শেষ! বিদায় নিল অষ্টমী! কিভাবে শেষ হচ্ছে গল্প?

আবার শুরু করে অভিনয়। ফোন করে যোগাযোগ করেন সকলের সঙ্গে। তবে এত সব কিছুর পরেও আশাহত হননি অভিনেত্রী। বর্তমানে নিজের অর্থে কলকাতায় কিনেছেন নিজের গাড়ি, ফ্ল্যাট। অভিনেত্রী বিশ্বাস করেন রাস্তায় বেরোলে প্রতিদিন তুমি ঠকবে কিন্তু বিশ্বাস করা ছাড়লে চলবে না। এতসব কিছুরও পরও এখনও বিশ্বাস রাখেন জীবনে আসবে ‘হ্যাপি এন্ডিং। শাহরুখ খানের সংলাপ বলে তিনি বলেছেন “যেসব বন্ধুরা আমায় বলতে আমি কিছু না করেই মারা যাবে তাহলে বলছি পিকচার আভি বাকি হেয় মেরে দোস্ত।”

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী। আমার লেখা আরও পড়তে এখানে ক্লিক করুন।