Bangla Serial

কালরাত্রিতেই মেঘের ঘরে ঢুকে পড়ল নীল! ঘটবে না তো কোন‌ও অশুভ ঘটনা? আতঙ্কিত দর্শকরা

জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় ধারাবাহিক ইচ্ছে পুতুলে (Icche Putul) সমস্ত বাধা বিপদ কাটিয়ে গাঁটছড়ায় আবদ্ধ হয়েছে নীল এবং মেঘ। একে অপরকে ভালোবাসলেও তাদের একসঙ্গে কাটানো অন্ধকার অতীতের কথা ভেবেই পৃথক হওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তারা। কিন্তু তাদের ভালোবাসার কথা ভেবেই ঠাম্মি দুজনকে একসঙ্গে সারাজীবনের জন্য বাঁধার পরিকল্পনা করেন। তার সিদ্ধান্তে সায় দেয় নীল এবং মেঘের পরিবারের সকলেই।

পরিকল্পনা অনুযায়ী বিয়ের সময় মণ্ডপে একেবারে শুভদৃষ্টির সময় তারা জানতে পারেন তাদের একে অপরের সঙ্গেই বিয়ে হচ্ছে। নীলকে দেখে মেঘ ভেবে বসে নীলই হয়তো এই পরিকল্পনা করেছে তাই বিয়েতে অসম্মতি জানায় মেঘ কিন্তু গিনি তাকে সবটা বলার পর এবং ঠাম্মির কথা শুনে একটি নরম হয় মেঘ। তারপর নীল মেঘের জন্য গান গেয়ে এবং হাঁটু গেড়ে তাকে বিয়ে করার প্রস্তাব দেয় মেঘকে। মেঘও রাজি হয়ে যায় তাতে।

কিন্তু বিয়ে চলাকালীন দেখানে চলে আসে ময়ূরী। মেঘের সঙ্গে নীলের বিয়ে হচ্ছে দেখে রাগে, হিংসায় জ্বলে যায় সে। রূপের দেওয়া বন্দুক বার করে গুলি করে মেঘকে। কিন্তু বন্দুক ধরায় দক্ষ না হওয়ায় নিশানা চ্যুত হয়ে সে। তারপরই ভয়ে বন্দুকটা ফেলে দেয় মাটিতে। ভয়ে মেঘ সংজ্ঞা হারালেও। কিছুক্ষন পর তার জ্ঞান ফিরে আসে। ওদিকে মধুমিতা ময়ূরীকে দেখে নেয় মেঘের ওপর গুলি চালাতে আর পুলিশকে ফোন করে দেন তিনি। পুলিশ এসে গ্রেফতার করে ময়ূরীকে।

ময়ূরীকে নিয়ে যাওয়ার পর বিয়ের সব নিয়মকানুন পালন করে মেঘকে নিয়ে গাঙ্গুলি বাড়ি চলে আসে নীল। মেঘের মনে পরে যায় পুরনো কথা কিন্তু সকলেই তাকে আশ্বাস দেয় যে এবার আর কোনও খারাপ কিছু হবে না। সকলে মিলে এবার থাকবে একসঙ্গে। কালরাত্রি সময় সকলে ঘর থেকে বেরিয়ে গেলেও ঘরে থেকে যায় ঠাম্মি। ওদিকে মেঘের সঙ্গে কথা বলার জন্য সুযোগের অপেক্ষায় বাথরুমেই বসে থাকে নীল।

ঠাম্মি সেটা বুঝতে পেরে নীলকে বাথরুম থেকে বের করিয়ে আনে। তারপর নিজে বাথরুমে চলে যায়। ওদিকে মেঘকে একা পেয়ে তার সঙ্গে ভালোবাসার মুহুর্ত কাটাতে থাকে নীল। কিন্তু তখনই চলে আসে ঠাম্মি এবং নীলকে নিয়ে চলে যায় বাইরে। নীলও মেঘের কানে কানে বলে সে আবার আসবে। আর এইসব দেখে মিটিমিটি হাসতে থাকে মেঘ। তবে কি মনে হয় আপনাদের এবার মেঘের সঙ্গে দেখা করার জন্য কি করবে নীল?

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী।