Bangla Serial

দত্ত বাড়িতে ফের গন্ডগোল! পিকলুর সঙ্গে বর্ষার ভালোবাসার কথা জেনে গিয়ে অদ্ভুত কাণ্ড ঘটল রগচটা কৃষ্ণা! কি করে সামাল দেবে পর্ণা?

জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় ধারাবাহিক নিম ফুলের মধুতে (Neem Phooler Madhu) শুরু হয়েছে আবার নতুন ঝামেলা। ধারাবাহিকে ইতিমধ্যেই অয়নের সমস্ত কুকীর্তির কথা চলে এসেছে সকলের সামনে। তখন পুলিশ বলে অয়নের বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ আছে। তাই এই বাড়ির লোকেরা যদি যায় তাহলে অয়নকে শাস্তি পেতেই হবে। সেটা শুনেই রেগে যায় অয়ন। কিন্তু পর্ণা তখন পুলিশকে বলে চলে যেতে সে অয়নের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ আনতে চায়না। তারপরই পুলিশ চলে গেলেই অয়ন বলে ওঠে এবার তোমাকে কে বাঁচাবে পর্ণা।

এই বলেই অয়ন একটা লাথি নিয়ে চলে আসে পর্ণাকে মারতে। কিন্তু পর্ণাকে বাঁচাতে দাড়িয়ে পরে গোটা দত্ত বাড়ি। জেঠু এবং সৃজনের বাবা টাকা দেয় সেই অয়নের গুন্ডাগুলো এবং তাদের বলে অয়নকে চেপে ধরতে। তারপর গিয়ে চেপে ধরে অয়নকে। অয়ন অনেক চিৎকার ঝামেলা করলেও কেউ তার কথা শুনে না। জেঠু সৃজনকে বলেন একটা গাধা আনতে। মাথায় ঘোল ঢেলে, কালী মাখিয়ে তিনি গাধার পিঠে বসবেন অয়নকে। অয়ন যা যা করেছে সবটারই প্রতিশোধ নেবেন তিনি।

কিন্তু সৃজন বলে সে গাধা কোথায় পাবে। তখনই জেঠু একটা ঠেলা গাড়ি নিয়ে আসেন এবং সকলেই অয়নের মাথায় ঘোল ঢালে, তাকে কালী মাথায় এবং তাকে জুতোর মালা করানো হয়। অয়ন বলে মনে মনে ভাবে সে পর্ণাকে ছাড়বে না। এইসব হয়ে গেলে সৃজন আনন্দে নাচতে থাকে কিন্তু পর্ণাকে বাধা দেয়। তখন জেঠি বলেন অয়নকে বাড়ি থেকে বের করে দিতে। কিন্তু জেঠু বলেন অয়ন বেরিয়ে গেলে আরও সমস্যা করবে তাই তাকে এই বাড়িতেই থাকতে হবে যাতে তিনি সকাল সন্ধ্যে তাকে জুতোর বারি মারতে পারেন। সেটা শুনে আরও কেউ কিছু বলেনা।

পরেরদিন সকালেই জেঠু অয়নের গালে জুতোর বাড়ি মারেন। পর্ণা আর সৃজন বেরোনোর সময় কৃষ্ণা বলে বর্ষাকে বলে তাকে কলেজ যেতে হবে না এবার তার বিয়ে দেবে তারা। তখন বর্ষা বাধা দিতে গেলে বর্ষাকে চড় মারে কৃষ্ণা। তিনি বলেন পিকলু সঙ্গে এই ঢলাঢলি তিনি আর বর্ষাকে করতে দেবেন না। সেটা শুনে ফেলে পিকলু আর সিদ্ধান্ত নেয়। সে এই বাড়ি ছেড়ে চলে যাবে। কিন্তু পর্ণা কৃষ্ণাকে বলে পর্ণা বড় হয়েছে তাই সে যা চায় তাই হবে।

আরো পড়ুন: আহা কী চমক! জ্যাসের ডিপার্টমেন্টে এসে জগদ্ধাত্রীর কাছে হাত জোড় করে ক্ষমা চাইল রাজনাথ! আসছে ধামাকা পর্ব

সৃজনও বলে বর্ষার অমতে এইভাবে তার বিয়ে দেওয়ায় ঠিক নয়। কিন্তু কৃষ্ণা কারুর কথা শুনতে চায়না। সে বলে তিনি একটি ছেলে দেখেছেন এবং প্রযোজিত আরও ভালো দেখাবেন কিন্তু পিকলুর সঙ্গে তিনি বর্ষাকে মিশতে দেবেন না। তখন পর্ণাও বলে সে কিছুতেই বর্ষাকে কষ্ট পেতে দেবে না। বর্ষা আর পিকলু যদি একে অপরকে ভালোবেসে থাকে তাহলে কাকা কাকিমা, রুচিরা আর চয়নের মতো সে বর্ষা আর পিকলুর বিয়ে। তাও দেবে। সেটা শুনে সৃজন বুঝতে পারেনা কি করবে। তাহলে কি মনে হয় আপনাদের পর্ণা কি পারবে বর্ষা আর পিকলুর বিয়ে দিতে নাকি ঘটবে অন্য সমস্যা?

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী।