Bangla Serial

মেঘ ও নীলের বিয়েতে পুড়ে গেল গাঁটছড়া! ময়ূরীর গুলিতে মৃ’ত্যু মুখে মেঘ

জি বাংলা (Zee Bangla) জনপ্রিয় ধারাবাহিক ইচ্ছে পুতুলের (Icche Putul) মেঘ এবং নীলের বিয়েতে চলে এসেছে নতুন মোড়। ঠাম্মি প্ল্যান অনুযায়ী মেঘ এবং নীলকে বিয়ের জন্য রাজি করে তাদের দুই পরিবার। মেঘ এবং নীল একে অপরের থেকে আলাদা হয়ে যাওয়ার কষ্টে তাদের পুরনোর কথা ভাবতে থাকে। ঠাম্মি কাছে নিয়ে নীল এবং অনিন্দ্য বাবুর কাছে গিয়ে মেঘ জানিয়ে দেয় নীলকেই ভালোবাসে সে। সেই কথা শুনে খুশি হয় অনিন্দ্য বাবু আর ঠাম্মি।

ওদিকে দুই বিয়ে বাড়ির মধ্যে যোগসূত্র হিসেবে থাকে গিনি এবং জিষ্ণু। সবই ভালোই চলছিল কিন্তু মেঘের বিয়ে উপলক্ষে বাড়ি ফিরে আসে ময়ূরী। আসার পর থেকেই সে নানাভাবে চেষ্টা করতে থাকে ছেলের বিষয়ে জানার। যদিও তার পরিকল্পনা বুঝে যাওয়ার কারণে তার কথাকে এড়িয়ে চলতে শুরু করে মধুমিতা এবং অনিন্দ্য বাবু।

তবে সেই কারণে থামেনি ময়ূরী। সে রূপকে দিয়ে খবর নেওয়ার চেষ্টা করে নীলের সঙ্গে মেঘের বিয়ে হচ্ছে কিনা। রূপ তাকে না বললে সে রূপকে বলে তাকে একটা বন্দুক এনে দিতে। তার কথা অনুযায়ী ব’ন্দু’ক এনে দেয় রূপ। তারা একসঙ্গে প্ল্যান করে যে ময়ূরী একফাকে মেঘকে ডেকে এনে তাকে গু’লি করবে এবং পরে সেই বন্দুকটা পরে রূপকে দিয়ে দেবে। সেই কথা শুনে খুশি হয়ে যায় ময়ূরী মনে মনে ভাবে মেঘকে সে উচিত শিক্ষা দেবে। মেঘকে সে খুশি হতে দেবে না।

তারপর বিয়ের সময় বরের বাড়ির সকলে আসে জিষ্ণুকে দেখে অবাক হয় মেঘ। তবে মেঘকে কোনও প্রশ্ন করার সুযোগ না দিয়েই তাকে নিয়ে মণ্ডপে চলে যায় জিষ্ণু। তারপর মেঘ পান সরছে না এবং নীলও সামনের দিকে তাকাচ্ছে না দেখে লাল নীলকে ডাকে। লালের গলার আওয়াজ শুনে মেঘ পিছনে ঘুরে দেখে সেখানে নীলের পুরো পরিবার উপস্থিত আছে তারপর সে সামনে ঘিরে দেখে তার পাত্র আসলে নীল।

সেটা দেখে খুশি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অভিমানও হয় তার। তখন মেঘকে গিনি সবটা বুঝিয়ে বললে মানভঞ্জন হয় মেঘের। তারপর পাত্রপাত্রী অর্থাৎ মেঘ এবং নীল দুজনেই বিয়েতে রাজি হয়ে যায় কিন্তু সাত পাকের সময় সেখানে চলে আসে ময়ূরী। মেঘের সঙ্গে নীলের বিয়ে হচ্ছে দেখে চরম রেগে যায় সে। হিংসার বশীভূত হয়ে সে মেঘকে গুলি করে। তাকে গু’লি চালাতে দেখে নেয় মধুমিতা। তারপর তিনি মেঘের দিকে তাকিয়ে দেখেন কাঁধে গুলি লেগেছে তার।

তাদের গাঁটছড়া ছিটকে পড়ে যায় আগুনে। মেঘকে পরে যাওয়ার আগেই ধরে নেয় নীল এবং মেঘকে জড়িয়ে হতবাকের মতো বসে থাকে সে। ওদিকে ময়ূরীর হাত থেকেও পরে যায় বন্দুক। সকলেই অবাক গিয়ে যায় এবং হাসপাতালে ফোন করে। তো কি মনে হয় আপনাদের এবার কি খেলা শেষ হবে ময়ূরীর? মেঘকে বাঁচতে পারবে প্রাণে?

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী।