Connect with us

    Bangla Serial

    নিম ফুলের মধুতে ধামাকা! মিস্টার এন্ড মিসেস বরাগের বিবাহ বার্ষিকী পালন করে তাদের মন জিতে নিল পর্ণা-সৃজন!

    Published

    on

    parna and srijan in neem phuler modhu

    জি বাংলার (Zee Bangla) ধারাবাহিক নিম ফুলের মধুতে (Neem Phooler Modhu) এসেছে নতুন চমক। শাড়ির কথা এবং জেঠুর মশলার ব্যবসা বন্ধ হবার পর বাঁকুর কথা শুনে অর্থ উপার্জনের জন্য পর্ণা বার করে এক নতুন বুদ্ধি। হোমস্টের ব্যবসা খোলে দত্ত পরিবার। প্রথমদিন বরাগ পরিবার আসে সেখানে থাকতে। পুরো দত্ত পরিবার তাদের স্বাগত জানায় ফুল এবং নারকেল ফাটিয়ে। যদিও সবার বিষয়টা ভালো লাগলেও, ভালো লাগেনি মৌমিতা আর অয়নের। তারা ফন্দি এতে যাচ্ছে ব্যবসাটা বন্ধ করার।

    বরাগ পরিবার দত্ত বাড়িতে আসার পর যখন তাদের ঘর দেখানোর কথা বলে তখন সকলে মিলে তাদের নিয়ে যায় ঘরে কিন্তু ঘরের নোংরা, কাদা, ভেজা তোয়ালে দেখে ক্ষুব্ধ হন বরাগ গিন্নি। বাড়ি ছাড়ার কথা বলেন তিনি। মিস্টার বরাগের ছেলেরাও বলে তারা থাকবে না এই বাড়িতে। ব্যবসারও খারাপ রেটিং নেবে বলে দেয়। তখন বর্ষা বুঝতে পারে কে করেছে এই কাণ্ড। ওদিকে অখিলেশ দত্তও বুঝে যান এই কান্ড তার ছেলেরই।

    neem phuler modhu

    তিনি অয়নকে দমকি দেন যেন সে কিছু না করে। এদিকে রুচিরা আর বর্ষা ঘর পরিষ্কার করতে থাকে। মিস্টার বরাগও তার স্ত্রীকে বোঝানোর চেষ্টা করেন কিন্তু তিনি রাজি হননি। উল্টে মিস্টার বরাগকে বলেন টাকা ফেরত নিয়ে চলে যেতে। পর্ণা, হেমনলিনী দেবী আর সৃজন বরাগ পরিবারকে বুঝিয়ে অপেক্ষা করতে বলে। তারপর সৃজন পর্ণা গিয়ে ঘর পরিষ্কার করতে শুরু করে এবং পর্ণা সৃজনকে কাদা জুতোর ছবি তুলে রাখতে বলে। সবাই তারপর তাড়াতাড়ি করে ঘর পরিষ্কার করে দেয়। তারপর তারা ঘরে গেলে তাদের ঘর পছন্দ হয়।

    বরাগ পরিবারকে যত্ন করে মধ্যাহ্ন ভোজন করায় দত্ত পরিবার। তারপর তারা চা চাইলে মৌমিতা তাদের চা দেয়না আর ভাবে এইবার তারা রেগে চলে যাবে। বরাগ পরিবারের কাছে আজ একটা বিশেষ দিন জানতে পেরে পর্ণা রেজিস্ট্রারে দেখে আজ তাদের বিবাহ বার্ষিকী তারপর চা না পাওয়ায় বরাগ পরিবার ঘর থেকে বেরোতেই পর্ণা আর সৃজন তাদের মত অভিনয় করে যা দেখে খুশি হন তারা। তারপর তাদের বিবাহ বার্ষিকীর শুভেচ্ছা জানিয়ে তাদের দিয়ে কেক কাটান তারা।

    আরও পড়ুনঃ হিরো না জিরো! শুধুই রয়েছে চেহারা আর ডায়লগবাজি! স্বয়ম্ভুকে তীব্র কটাক্ষ নেটিজেনদের

    এসব দেখে খুব খুশি হয় বরাগ পরিবার জানান ৫ স্টার দেবেন তারা। তারপর মিস্টার বরাগ সিঁদুর পরিয়ে দেন মিসেস বরাগকে। সবাই খুব খুশি হয়। এসব দেখে রেগে যায় মৌমিতা। সে ঈশাকে ফোন করতেই ঈশা বুদ্ধি দেয় রাতের খাবারে কিছু মিশিয়ে দিতে। সেই শুনে খুশি হয় মৌমিতা এবং ফন্দি আঁটতে শুরু করে কিভাবে সে খাবারে কিছু মিশাবে। পর্ণা কি ধরতে পারবে মৌমিতার চক্রান্ত!