Bangla Serial

ঈশার সমস্ত চক্রান্ত ধরে ফেললো পর্ণা! ফাঁপরে অয়ন, মৌমিতা! নিম ফুলে হ‌ইচ‌ই

জি বাংলার (Zee Bangla) নিম ফুলের মধু (Neem Phooler Madhu) ধারাবাহিকে পর্ণা আর সৃজন শুরু করেছে হোম স্টের ব্যাবসা। মিস্টার আর মিসেস বরাগের বিবাহ বার্ষিকী উদযাপন করে জিতে নিয়েছে তাদের মন। তারা খুশি হয়ে ৫ স্টার রেটিংও দিয়েছে তাদের। ওদিকে মৌমিতার জারিজুরি ধরে ফেলেছে পর্ণা। জোলাপ মেশানো খাওয়ার খেয়ে অসুস্থ মৌমিতা। মৌমিতার সমস্ত কিছু ভিডিও করে দেখেছে পর্ণা নিজের ফোনে। সৃজন, ছোটকা আর চয়ন ইচ্ছা করে মেঝেতে রং ফেলে রেখেছিল।

মৌমিতার জন্য অয়ন ওষুধ আনতে গেলে, সেই রঙের বালতিতে পা দেয় অয়ন। পায়ের ছাপ দেখেই ওরা বুঝে যায় ঘরে নোংরা অয়ন আর মৌমিতাই ফেলে রেখেছিল। তখনই অয়নের ওপর চড়াও হয় সৃজন, চয়ন আর ছোটকা। জিজ্ঞাসাবাদ করে অয়নকে কিন্তু অয়ন মুখ খোলে নি তখনই জুতো দিয়ে মারতে শুরু করে ছোটকা অয়নকে। অয়ন প্রতিবাদ করতে গেলে তাকে থামিয়ে দেয় ওরা।

ছোটকা অয়নকে বলে “তোর লজ্জা নেই, এটা তো আমাদের বাড়ির ব্যাবসা সকলে চেষ্টা করছে একসঙ্গে ব্যাবসাটাকে প্রতিষ্ঠিত করতে যাতে কিছু টাকা রোজগার করা যায় আর তুই বাড়ির ছেলে হয়ে আমি বাড়ির ক্ষতি চাইছিস।” তারপর মারতে থাকে ছোটকা অয়নকে অয়ন যখন বলে বাড়ি চলো বাড়ি গিয়ে কথা বলো তখন চয়ন বলে “তুই ভুলে যাসনা আমাদের কাছে প্রমাণ আছে বাবা যদি জানতে পারে এসব তুই করেছিস বাবা তোকে কি করবে ভাব” এই কথা শুনে অয়ন চুপ করে যায়। সৃজন অয়নকে ওষুধ দিয়ে দেয়।

অয়ন বাড়ি আসে মৌমিতাকে ওষুধ দিয়ে বলে সবাই সব জেনে গেছে আর ছোটকা তাকে খুব মেরেছে, সে আর এইসবের মধ্যে থাকবে না। ইতিমধ্যেই ফোন করে ঈশা। অয়ন ফোনটা ধরতে যাবে তখন পর্ণা ফোনটা রিসিভ করে স্পিকারে দিয়ে দেয়। আর ঈশা জিজ্ঞাসা করে কাজ হয়েছে নাকি। তখন পর্ণা কিছু না বলে ফোন কেটে দেয় এবং মৌমিতা, অয়নকে বলে তোমরা এটাও করতে পারলে। এই বলে পর্ণা চলে যায়।

পর্ণা, সৃজন, রুচিরা, চয়ন আর কাকা সবাই মিলে আলোচনা করে যে অয়ন আর মৌমিতার সামনে আর কিছু বলবে না তারা। তখনই তাদের ফোন নতুন বুকিং আসে তরঙ্গ দত্ত নামে কিন্তু তিনি তার কোনও বিষয়ে কিছুই জানায়নি সেখানে। এটা দেখে পর্ণার চিন্তা হয়ে থাকে। ওদিকে তরঙ্গ দত্ত কারুর সঙ্গে ফোনে কথা বলে আর সে জানায় রুম বুক হয়ে গেছে, নতুন হোম স্টে কেউ সন্দেহ করবে না।

ঘরে আসেও পর্ণা তরঙ্গ দত্তকে নিয়ে ভাবতে থাকে আর তখন সৃজন ঘরে আসলে পর্ণা ভয় পেয়ে যায়। কি হয়েছে জিজ্ঞাসা করলেই পর্ণা বলে তার ঠিক লাগছে না এই তরঙ্গ দত্তকে। পর্ণা দেখে কই একজন লোক বাড়িতে এসেছে এবং সৃজনকে গুলি করে তখনই ঘুম ভেঙে যায় পর্ণা। পর্ণার চিৎকার শুনে সৃজন উঠে গেলে পর্ণা বলে সে যেন তরঙ্গ দত্তর বুকিং বাতিল করে দেয়। তখন পর্ণাকে শান্ত করিয়ে সৃজন ঘুইয়ে পর। আসলে কে এই তরঙ্গ দত্ত? কি চায় সে?

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী। আমার লেখা আরও পড়তে এখানে ক্লিক করুন।