Bangla Serial

সব সময় খ্যাঁচ খ্যাঁচ করে! কোন খাবার ঠিক করে অর্ডার করতে পারেনা! দিদির মঞ্চে মানালিকে নিয়ে হাটে হাঁড়ি ভাঙলেন মনের কথা তারকারা

Simul of ‘Kar Kache Koi Moner Kotha’ : জি বাংলার (Zee Bangla) অর্গানিক স্টুডিওর (Organic Studio) জনপ্রিয় ধারাবাহিক কার কাছে কই মনের কথা (Kar Kache Koi Moner Kotha)। বর্তমানে সমাজ প্রগতিশীল হলেও কোথাও এখনও মেয়েদের নিয়ে চিন্তাধারা রয়ে গেছে পিছিয়ে। বিয়ের পরই কেমন যেন পলকের মধ্যেই বদলে যায় মেয়েদের জীবন। নিজের সমস্ত স্বপ্ন আকা’ঙ্ক্ষা সবাইকে সরিয়ে রেখে শুরু হয় মেয়েদের সংসার নামক সংগ্রাম। নিজেকে নিয়ে ভাবার, নিজের জন্য ভাবার অবসরই পাননা তারা। তবে মেয়েদের মনে কথা তুলে ধরতেই জি বাংলায় শুরু হয়েছিল ধারাবাহিক কার কাছে কই মনের কথা।

ইতিমধ্যেই পরিবর্তন হয়েছে ধারাবাহিকে সময়। ধারাবাহিকের কাহিনীতে এসেছে নানা পরিবর্তন। ধারাবাহিকে আবার ফিরছে প্রতীক্ষা। বিপাশাকে নিজের কাছে আটকে রাখতে মরিয়া হয়ে উঠেছে চন্দন। শিমুলকে ছেড়ে চলে গেছে পরাগ। কিন্তু রাস্তায় দুর্ঘটনার মুখে পড়েছে সে। সব মিলিয়ে একের পর এক চমক নিয়ে এসেছে ধারাবাহিকটি। তবে এই সপ্তাহে দিদির মঞ্চে হাজির হয়েছিলেন ধারাবাহিকের কলাকুশলীরা। দিদি নম্বর ১-এর মঞ্চে তারা তুলে ধরেছেন সেটে চলতে থাকা নানা খুনসুটির কাহিনী। নানা অজানা কথা।

দিদি নম্বর ১ মঞ্চে কার কাছে কই মনের কথা সদস্য (Member of Kar Kache Koi Moner Kotha in Didi No 1 Stage):

সম্প্রতি ধারাবাহিকের অভিনেত্রীরা এসেছিলেন দিদি নম্বর ১-এর মঞ্চে। সেই পর্বে এসেছিল আপনাদের প্রিয় শিমুল অর্থাৎ মানালি দে, এসেছিলেন বিপাশা ওরফে স্নেহা চ্যাটার্জী, পুতুল ওরফে শ্রীতমা ভট্টাচার্য, শীর্ষা ওরফে সৃজনী মিত্র মুস্তাফি। সেদিন অভিনেত্রীরা বলেছেন নিজেদের হাঁড়ির খবর। শিমুলের কোন জিনিসটা মানালির ভালো লাগেনা, রচনা ব্যানার্জি এই প্রশ্ন করায় মানালি উত্তর দেন শিমুলের একটু জেদটা কমানো উচিত। আর এই উত্তর শুনে পাশে দাঁড়ানো শ্রীতমা বলে ওঠেন ব্যক্তিগত জীবনে শিমুলের‌ও এটা মানালিকে বলা উচিত। সবসময় খ্যাঁচ খ্যাঁচ করছে।

আর এই কথা শুনে অভিনেত্রী শ্রীতমার উদ্দেশ্যে অভিনেত্রী মানালি বলেছেন “ওকে অভিনয় করতে হয়না ও ওরকমই। যখন তখন কোমর নাচাচ্ছে। এটা দড়ি বেঁধে দিল ওটা নিয়েই ঘোরাচ্ছে আর নাচছে।”

অভিনেত্রীর কান্ড দেখে হেসে মাটিতে লুকিয়ে পড়েন সকলে। তবে অভিনেত্রীরা সকলের বলেছেন দারুণ খাওয়াদাওয়া হয় তাদের সেটে। যদিও অভিনেত্রীর স্নেহার মতে সেটে সবচেয়ে বেশি খেতে ভালোবাসেন শ্রীতমা এবং সকলকে খাওয়াতে ভালোবাসলেও মানালি অর্ডার করতে পারেননা একদমই। তার অর্ডার করা খাওয়ার প্রতিবারই যায় ফ্লপ। সেই কথা স্বীকার করে মানালিও বলছেন “আমি ফোন দিয়ে বলি আমার ফোন থেকে কর আমি খাওয়াতে চাই কিন্তু অর্ডার করতে পারিনা।”

আরো পড়ুন: মন ভাঙার খবর! স্তনে টিউমার, শুটিং সেটে গুরুতর অসুস্থ ‘সাথী’ ধারাবাহিকের নায়িকা! এখন কেমন আছেন অভিনেত্রী?

অপরদিকে অভিনেত্রী স্নেহা শীর্ষা ওরফে সৃজনীর দিকে ইশারা করে বলেছেন “এত খালি ঘাসফুস।” স্নেহার কথার উত্তরে অভিনেত্রী বলেছেন তিনি ভাত, ডাল, কচুর শাক খান। মাঝরাতে ব্রাউনি, কেক অর্ডার করে খান তিনি। যদিও পরক্ষনেই স্নেহা বলেছেন এসব “ঢপে’র মালা। কি খেলি জিজ্ঞাসা করলেই বলবে স্মুদি। আমরা কেউ ওকে আজ অব্দি ভাত খেতে দেখিনি। ওর খাওয়া বলতে দই, খেজুর, কলা দিয়ে খেয়ে নেয় এটাও ওর খাওয়া।” অভিনেত্রীর কথায় হেসে উঠেছেন দর্শকরা। আপনাদের তবে এই ধারাবাহিকটি কেমন লাগে?

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী। আমার লেখা আরও পড়তে এখানে ক্লিক করুন।