Connect with us

    Bangla Serial

    কাপুরুষ সূর্যর প্রেমে হাবুডুবু তিন নায়িকা! দীপা আর মিশকাকে ভুলে ইরা এখন সূর্যর নতুন বন্ধু!

    Published

    on

    Surya ira mishka dipa scaled

    স্টার জলসার (Star Jalsha) জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ (Anurager Chowwa) । জলসা পর্দার এই ধারাবাহিকটি নিছক প্রেমের গল্পের আদলে শুরু হলেও যত দিন এগোচ্ছে ততই ছক ভেঙে নতুন আঙ্গিকে উপস্থিত হচ্ছে ‘অনুরাগের ছোঁয়া’। বেঙ্গল টপার ধারাবাহিকটির নায়ক সূর্য তাঁর পুরনো জীবন থেকে পালিয়ে এখন অনেক দূরে। পুরনো স্মৃতি, প্রিয়জনদের ভুলে নতুন করে বাঁচবে বলে স্থির করেছে সে। যদিও তাঁর অস্তিত্বকে ভোলেনি কেউই। একা লড়ার মাঝে সূর্যকে এখনও খুঁজে চলেছে দীপা। জেলে বসে সূর্যর সঙ্গেই সংসার করার স্বপ্ন দেখছে মিশকা। আবার নতুন জীবনে পা দিতেই সূর্যর জীবনে এসেছে নতুন নায়িকা ইরা।

    দীপার সঙ্গে ডিভোর্সের পর থেকেই ক্রমে যেন হেরে যাচ্ছে সূর্য। নিজের মেয়েদের সামলাতেও অক্ষম বাবা সে। সূর্যর ছায়ায় থাকা ছোট্ট রূপাকে মারার চেষ্টা করে মিশকা। প্রাণে বাঁচলেও বিরল রোগে আক্রান্ত হয় রূপা। দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় দশ বছরের শাস্তি পায় ক্রিমিনাল মিশকা। যদিও হাল ছাড়তে নারাজ সে। জেলের অন্ধকারে বসেও সূর্যর কথা দিবারাত্র ভেবে যাচ্ছে মিশকা। ভাবছে, দীপা ও সেনগুপ্ত পরিবারকে কিভাবে সর্বশান্ত করবে।

    এদিকে সূর্যহীন জীবনে একাই লড়ছে নায়িকা দীপা। নতুন করে সম্পর্কের বেড়াজালে আর জড়াবে না সে। দুই মেয়ের সিঙ্গেল মাদার দীপা শুধুই ডিভোর্সী নারী ও মা নয়। সে সেনগুপ্ত পরিবারের প্রাক্তন বৌমাও। সূর্যের অনুপস্থিতিতে মিশকার পাপাই হাতিয়ে নিয়েছে সেনগুপ্ত বাড়ি। দীপা কিন্তু মুখ বুজে সহ্য করেনি অন্যায়। নিজের দায়িত্ব ভোলেনি সে। সেনগুপ্তদের নিজের বাড়িতে
    আশ্রয় দিয়েছে দীপা।

    দায়িত্ববান দীপা মিশকার পাপাইয়ের চোখে চোখ রেখে চ্যালেঞ্জ করেছে, সেনগুপ্ত বাড়িকে আইনি পথে উদ্ধার করবে সে। ফিরিয়ে দেবে তাঁদের যোগ্য অধিকার। অন্যদিকে, এই দীপার বিরুদ্ধেই চক্রান্ত করে যাচ্ছে মিশকা। সূর্যের মা লাবণ্য সেনগুপ্ত ও দীপা একদিন তাঁর কাছে ভিক্ষা চাইবে, সূর্যর সঙ্গে একদিন সংসার করবে সে। এখন এটাই হয়েছে শয়নে স্বপনে কল্পনা। যদিও, মুখ বুজে যুদ্ধে লড়ে গেলেও মনে মনে সূর্যকে একটিবার দেখতে চাইছে
    দীপাও।

    যে সূর্যের জন্য অধীর অপেক্ষায় বসে রয়েছে দীপা ও মিশকা, সেই ঘরপালানো সূর্যের জীবনে এখন তৃতীয় নায়িকা ইরা। প্রাণোচ্ছল প্রকৃতির কথা বলতে ভালোবাসা ইরার উপস্থিতি মোটেই ভালো চোখে দেখছে না সূর্য। অথচ ইরা যেন বারবার সূর্যের সঙ্গে বন্ধুত্ব করতেই চাইছে। সূর্য বিরক্ত হচ্ছে ঠিকই তবু এড়িয়ে যেতে পারছে না ইরাকে। তিন নায়িকার মধ্যে কাউকে কি মন দিতে পারবে সূর্য? নাকি নতুন জীবনে আর অনুরাগের পথে পা বাড়াবে না ‘অনুরাগের ছোঁয়ার’ নায়ক? রহস্য বাড়ছে ক্রমে।