Bangla SerialEntertainment

“বাংলা সিরিয়াল বড্ড নারী কেন্দ্রিক! কিছু নায়ক কেন্দ্রিক হওয়া ভালো!” বাংলা ধারাবাহিক ছাড়ছেন সৈয়দ আরেফিন?

বর্তমানে ধারাবাহিকের জগতে অত্যন্ত জনপ্রিয় মুখ অভিনেতা তিনি। একের পর এক ধারাবাহিকে অভিনয় করে দর্শকদের মন জয় করেছেন অভিনেতা। ২০১৮ সালে স্টার জলসার ইরাবতীর চুপকথার মাধ্যমে পর্দায় আত্মপ্রকাশ করেছিলেন অভিনেতা সৈয়দ আরেফিন (Syed Arefin)আক্রোপলিস এন্টারটেনমেন্ট (Acropoliis Entertainment) প্রযোজিত এই ধারাবাহিকটিতে অ্যাঙরি ইয়াং ম্যানের চরিত্রে সৈয়দ আরেফিনের অভিনয় দারুণ পছন্দ করেছিলেন দর্শকরা।

ইরাবতীর চুপকথার পর খেলাঘর, তুঁতে ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন অভিনেতা। বর্তমানে জি বাংলার ব্লুজ প্রোডাকশন হাইজের প্রযোজিত যোগমায়া ধারাবাহিকে মুখ্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। ধারাবাহিকে যোগমায়ার স্বামী রেহান চট্টোপাধ্যায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সৈয়দ আরেফিন। সম্প্রতি শোনা যাচ্ছিল যোগমায়া ছাড়ছেন অভিনেতা। একটি জনপ্রিয় সংবাদ মাধ্যম তাঁর সাক্ষাৎকারে সেই নিয়েই মুখ খুললেন তিনি।

ধারাবাহিকে তাঁর চরিত্র নিয়ে কি বলেছেন অভিনেতা আরেফিন?

অভিনেতা সৈয়দ আরেফিন জানিয়েছেন “আমি ভাগ্যক্রমে অনেক আলাদা আলাদা চরিত্র করতে পেরেছে। ইরাবতীর চুপকথায় চরিত্রটা আলাদা রকমের ছিল। এরপর স্নেহাশিস চক্রবর্তীর লেখা খেলাঘরে শান্টুর চরিত্রটা একেবারে আলাদা। আদৌ কখনও এরকম চরিত্র পাব কিনা জানি না। তুঁতেতে বিশেষ কিছু ছিল না। এটাতেও তেমন নয় তবে শান্ত এবং বাবা মায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করে এদিক থেকে আলাদা।“

image 13

বর্তমানে বেশিরভাগ ধারাবাহিক নারীকেন্দ্রিক, ধারাবাহিক থেকে কি কমে যাচ্ছে হিরোদের প্রভাব? কি বলছেন অভিনেতা সৈয়দ আরেফিন

অভিনেতার কথায়, “আমার ক্ষেত্রে এরকমটা হয়নি। ইরাবতীর চুপকথা, খেলাঘর। তুঁতে হিরোইন কেন্দ্রিক ছিল তবে যোগমায়াতেও আমার চরিত্রটা ভালোভাবে দেখানো হয়েছে। আমার মনে হয় দাদার সিরিয়ালগুলো এরকম হয় গঙ্গারাম, খোকাবাবু। স্নেহাশিস চক্রবর্তী হিরোকেন্দ্রিক সিরিয়াল বানান। মেয়েরাই বেশি সিরিয়াল দেখে এবার মেয়েরা মেয়েদের বেশি দেখবে না ছেলেদের বেশি দেখবে তাই আমার মনে হয় ছেলেকেন্দ্রিক সিরিয়াল হওয়া ভালো।

আরো পড়ুন: “বাবার মতো আপন কেহ নাই…”। মানসিক ভারসাম্য হারিয়েও দুই মেয়েকে বড় বিপদের হাত থেকে রক্ষা করল সূর্য!

ধারাবাহিক থেকে কি বিদায় নিচ্ছেন অভিনেতা সৈয়দ আরেফিন?

অভিনেতা বলেছেন “সিনেমায় যাওয়ার ইচ্ছা শুরু থেকেই ছিল। সুযোগ পেলে করব কিন্তু সিরিয়াল আমায় অনেক কিছু দিয়েছে তাই সিরিয়াল ছাড়ব না। সিরিয়াল একটা খুব ভালো শেখার জায়গা। প্রতিদিন ক্যামেরা দেখছি, স্ক্রিপ্ট পড়ছি, তবে সিরিয়ালের নায়ক নায়িকাদের জনপ্রিয়তা সিরিয়াল চলা পর্যন্ত। আজ আমি আর অঙ্কুশ একজায়গায় গেলে আমায় কেউ কি দেখবে? না, সবাই অংকুশকেই দেখবে। তবে এখন হল নেই সেই কারণে মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছানোর সবচেয়ে ভালো মাধ্যম হল সিরিয়াল।“

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী। আমার লেখা আরও পড়তে এখানে ক্লিক করুন।