Connect with us

    Tollywood

    পূর্ণতা পায়নি প্রেম! সাবিত্রীর বাবার ভয়ে বাথরুমেই ঠাঁই হয়েছিল উত্তম কুমারের! জানুন এক রোমাঞ্চকর অজানা গল্প

    Published

    on

    sabitri uttam kumar scaled

    উত্তম-সুচিত্রা (Uttam-Suchitra) প্রণয় রসায়ন যতটা লোকমুখে চর্চিত, ততটা কিন্তু কখনওই জায়গা পায়নি উত্তম কুমারের (Uttam Kumar) প্রতি সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়ের (Sabitri Chatterjee) একান্ত ভালবাসা। যুগের পর যুগ কাটিয়ে মহানায়কের প্রতি তাঁর ভালবাসা নিয়ে বেশ খোলামেলা হয়েছেন সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়।

    এক সাক্ষাৎকার নিজেদের প্রেম প্রসঙ্গে অকপট ভাবে অভিনেত্রী জানিয়েছিলেন, ‘প্রেম ছিল খানিকটা। তবে রটনাটা বেশি। আসলটা কম। যেটা বেরিয়েছিল, বালিগঞ্জে আমার সঙ্গে বিয়ে করে বাড়ি ভাড়া করে রয়েছেন উত্তম কুমার। তখন এই নিয়ে ঝড় বয়েছিল বেশ। কিন্তু এ সব পুরোটা কল্পনা। তবে তার পর থেকেই জীবনে যেন ট্র্যাজেডি নেমে এল।’ অনেকে আবার বলে, সাবিত্রী নাকি চাইতেন উত্তম কুমার নিজের সংসার ছেড়ে তাঁর সঙ্গে ঘর করুক। তবে এও জল্পনা তা নিজেই ভেঙে দেন অভিনেত্রী। জানান, ‘আমি কখনও চাইনি সে সংসার ছেড়ে চলে আসুক। আমার কপালে যদি বিবাহিত পুরুষই জোটে তবে আমি কী করব? ভালবাসবা না? তবে কখনও কারও ঘর ভাঙতে চাইনি।’

    উত্তম-সাবিত্রী জল্পনা যখন শহর জুড়ে তুঙ্গে, সেই পরিস্থিতি এক প্রকার গৃহযুদ্ধ লেগে গিয়েছিল অভিনেত্রী ঘরে। তবে এত জল্পনা-কল্পনা-বদনামের মাঝেও কখনও সাবিত্রীর হাত ছাড়েননি উত্তম কুমার। মানুষের হাজার কথার মাঝেও তাঁর বাড়িতে বেশ আসা-যাওয়া করতেন মহানায়ক।

    আরো পড়ুন: আপাদমস্তক ‘ভে’ড়া’ ছেলে! পর্ণার মতো ঝকঝকে মেয়ের নায়ক হিসেবে সৃজনের মতো মা’থা’মো’টা ছেলেকে মানতে নারাজ দর্শকরা!

    অবশ্য, সাবিত্রী চট্টোপাধ্যায়ের বাবাকে বেশ ভয় পেতেন উত্তম কুমার। খানিক মন কষাকষিও ছিল তাঁদের মধ্যে। অভিনেত্রীর বাবাকে এতটাই ভয় পেতেন মহানায়ক যে সেই দাপটের চাপে একবার বাথরুমে গিয়ে লুকিয়ে ছিলেন উত্তম কুমার। এক কালে শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়ের ‘অপুর সংসার’ অনুষ্ঠানে এসেই মহানায়কের বাথরুম কীর্তির কথা জানিয়েছিলেন সাবিত্রী।

    তিনি বলেছিলেন, ‘বাবা ছিলেন কড়া মানুষ। মেয়ে যতই অভিনয় করুক ১০টার মধ্যে বাড়ি তাঁকে ঢুকতেই হবে। বাবা নিজের হাতে দরজায় তালা দিতেন।’ এই কথা প্রসঙ্গেই অভিনেত্রী বলেন, একদিন তাঁর বাড়িতে আড্ডা দিতে এসেছিলেন মহানায়ক। আড্ডা সাবিত্রী থেকে তাঁর দিদি-জামাইবাবু ছিলেন সবাই। শুধু নিজের ঘরে ঘুমোচ্ছিলেন অভিনেত্রীর বাবা। হঠাই তাঁর ঘুম ভাঙে, তিনি খিল খুললে সেই শব্দ গিয়ে পৌঁছয় উত্তম কুমারের কানে। তারপরেই এক লাফে বাথরুম। বাবার ভয়ে নাকি বাথরুমে আশ্রয় নিয়েছিলেন মহানায়ক। ডুবে ছিলেন চৌবাচ্চায়।