Bangla SerialEntertainment

রাই নয় আদতে বৌমণির বেশি প্রিয় স্রোত! মিঠিঝোরার অন্দরের কথা ভাগ করলেন স্বপ্নীলা-পূজা!

জি বাংলার (Zee Bangla) বর্তমানে সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং চর্চিত ধারাবাহিক মিঠিঝোরা (Mithijhora)। নতুন নতুন চমকের কারণে জমে উঠেছে ধারাবাহিকের কাহিনী। শুরু থেকেই একেবারে ভিন্ন স্বাদের কাহিনীর জন্য ধারাবাহিকটি নজর করেছে দর্শকদের। ধারাবাহিকের শুরুতেই দেখা গেছে বাবার মৃত্যুর পর সংসারের দায়িত্ব কাঁধে তুলে নেয় রাই। ভালোবাসা, নিজের সংসার গড়ার স্বপ্ন সব কিছুকে জলাঞ্জলি দিয়ে বড় দিদি হয়েই সংসারের দায়িত্ব সমনোর সিদ্ধান্ত নেয় রাই এবং নিজের ভালোবাসার মানুষের বিয়ে দিয়ে দেয় নিজের মেজ বোনের সঙ্গে।

শত সমস্যার মধ্যেও রাইয়ের হাত ছাড়েননি তার বৌমণি এবং স্রোত, মিঠিঝোরা তুলে ধরেছে ননদ, বৌদি এবং বোনের সম্পর্কের ভিন্ন পরিভাষা

তবে নীলু, মা, দাদা রাইয়ের অবদান ভুলে গিয়ে বারবার তাকে অপমান করলেও রাইয়ের হাত ছাড়েনি তার বৌমণি মিষ্টি এবং তার ছোট বোন স্রোত। বারবার দিদির এবং ননদের অপমানের যোগ্য জবাব দিয়েছেন স্রোত এবং মিষ্টি। সমস্ত পরিস্থিতিতেই তারা পাশে থেকেছে রাইয়ের। রাইকে সবসময় সঠিক সিদ্ধান্ত নিতেও সাহায্য করেছেন তারা। ধারাবাহিকে এরকম বোন এবং এরকম ননদ সত্যি অতি বিরল। তাছাড়াও বিক্রমের চরম খারাপ ব্যবহার সহ্য করেও বিক্রমের হাত ছাড়েননি মিষ্টি। তাকে থেকেছেন সবসময়।

সম্প্রতি তাদের সাক্ষাৎকার নিতে একটি জনপ্রিয় সংবাদ মাধ্যম। সেখানেই ধারাবাহিকের নানা বিষয়ে জানিয়েছেন তারা। অভিনেত্রী পূজা মিষ্টির চরিত্রটি নিয়ে জানিয়েছেন “এই ধরনেরই চরিত্র সত্যিই দেখা যায়না এবং এই পরিবারটাও এরকম দেখিয়েছেন যে এনারা বউমাকে নিজের মেয়ের মতোই দেখেন। তাকে এত ভালোবাসেন। বৌমণির জীবনে একটা না পাওয়াও রয়েছে আবার উল্টো দিকে একটা বিরাট বড় পাওয়াও রয়েছে। যেখানে ননদরা এত ভালবাসে।”

দিদির জীবনে যেমন রঙ এসেছে তেমন বৌমণির জীবনেও রঙ আসা উচিত?

স্রোত অর্থাৎ অভিনেত্রী স্বপ্নীলা জানিয়েছেন না বৌমণি কোথাও যাবে না। দাদাভাইকে আমরা খুব ভালোবাসি। বৌমণি দাদাভাইয়ের।” খানিকটা কড়া গলায় অভিনেত্রী বৌমণিকে বলেন “এই তুমি কিন্তু কোথাও যাবে না তুমি দাদাভাইয়ের।” এটা শুনে হেসে অভিনেত্রী পূজা বলেন “না দাদাভাইকে ছেড়ে যাব কেন? দাদাভাই তো ভালোই। আসলে দাদাভাইয়ের জীবনেও একটা ক্ষোভ রয়েছে সেটা থেকেই দাদাভাই এরকম করে। আসলে প্রেম করে বিয়ে তো তাই বৌমণি এখনও দাদাভাইকেই ভালোবাসে। তবে বিক্রম আর মিষ্টির সম্পর্কটা একটা সুন্দর মেসেজ দেয় যে খারাপ সময়টা একসঙ্গে একে অপরের পাশে থাকলেই সম্পর্কটা টিকে থাকে।”

তিন ননদের মধ্যে কাকে বেশি ভালোবাসেন বৌমণি? কি বললেন অভিনেত্রী পূজা বণিক

প্রশ্নটা শুনেই খানিকটা দ্বিধায় পড়ে যান অভিনেত্রী। মজার ছলেই বৌমণির মাথায় হাত দিয়ে বন্দুক বানিয়ে ধরে তার ছোট ননদ স্রোত। অভিনেত্রী পূজা জানান “বৌমণি তিন ননদকেই খুব ভালোবাসে। তবে স্রোত আসলে অন স্ক্রিন এবং অফ স্ক্রিন আমার খুব প্রিয়। ছোট ননদকেই একটু বেশি ভালোবাসে বৌমণি।” যদিও ধারাবাহিকের মহাপর্ব নিয়ে তারা জানিয়েছেন আসন্ন পর্বে অনেক বড় ধামাকা আসছে ধারাবাহিকে। এছাড়াও নতুন চমকও দেখা যাবে তিন বনের জীবনে। তবে সেটা দেখার জন্য চোখ রাখতে হবে মিঠিঝোরা ধারাবাহিকে।

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী। আমার লেখা আরও পড়তে এখানে ক্লিক করুন।