Bangla Serial

দাবাং পর্ণা! টাকা উদ্ধার করে সকলের হাতে অয়নকে জুতোর বাড়ি খাওয়ালো পর্ণা! নিম ফুলের মধুতে বিরাট চমক

জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় ধারাবাহিক নিম ফুলের মধুতে (Neem Phooler Madhu) বাবার শ্রাদ্ধ করছে অয়ন। সেটা দেখেই খুব ভেঙে পড়েছেন অখিলেশ দত্ত এবং তার স্ত্রী। বাবার শ্রাদ্ধ করতে বসে যায় অয়ন। এইসব দেখে রেগে যায় পর্ণা। জেঠি বারবার অয়নকে বলতে থাকেন এইসব বন্ধ করতে কিন্তু তার কোনও কথাতেই কান দেয়না অয়ন। ইতিমধ্যেই চলে এসেছেন পুরোহিত সেখানে। তিনি এসেই শুরু করেন শ্রাদ্ধ। এইসব দেখে অখিলেশ দত্ত পর্ণাকে বলেন কিছু একটা করতে। সে কথা দিয়েছিলেন অয়নকে শাস্তি দেবে। সেটা শুনে পর্ণা বলে সে শুধু একটা সুযোগের অপেক্ষায় আসে ব্যাস।

সৃজনের বাবা অয়নের শ্রাদ্ধ নষ্ট করতে গেলে, অয়নের গুন্ডারা থামিয়ে দেয় তাকে। সৃজন তাকে বলে শান্ত হতে। কৃষ্ণাও অয়নকে বলে সে আগে এরকম ছিল না সে ভুল করছে। তখন অয়ন তাকে বলে সে এতদিন চুপ ছিল তাই ভালো ছিল এখন কথা বলছে তাই খারাপ। তবে তার এতে যায় আসে না। তখনই সেখানেই চলে আসে কয়েকজন লোক। তারা বলেন তারা এসেছেন লটারির কোম্পানি থেকে। তাদের একটা ভুল হয়েছিল, অয়ন টাকা জেতেনি তাই সে যেন টাকাটা ফিরিয়ে দেয়। সেটা শুনে অয়ন বলে তার কাছে কোনও টাকা নেই, তাদের ভুল হয়েছে তাতে তার কিছু করার নেই। কিন্তু সে সমস্ত টাকা খরচ করে ফেলেছে।

তখন সেখানেই চলে আসে পুলিশ। তাকে দেখে একটু ভয় অয়ন। তারা আসে অয়নকে বলে টাকা বের করতে কিন্তু অয়ন তাদের বলে তার কাছে কোনও টাকা নেই। তখন পুলিশ সহ সকলেই চলে যায় টাকার বের করতে কিন্তু কেউই কোনও টাকা খুঁজে পায়না অয়নের ঘরে। তারা আসে বারবার জোর করতে থাকে অয়নকে সত্যি বলার জন্য। কিন্তু সে কিছুই বলে না। অয়নকে এত নিশ্চিত হয়ে দেখে পর্ণা বুঝে যায় কিছু একটা গড়বড় হয়েছে তাহলে অয়ন এতটা শান্ত থাকত না। সে নিশ্চয়ই টাকাটা অন্য কোথাও সরিয়েছে। তখন বর্ষাও বলে টাকা কথায় আসে চলে দিতে কারণ ৫০ লাখ টাকা খরচ করা মুখের কথা নয়। তখনই বর্ষাকে ধমক দেয় অয়ন। যদিও বর্ষা সেটাকে পাত্তা দেয়না।

তখন পুলিশ আসে পর্ণাকে বলে তারা কোনও টাকা খুঁজে পায়নি অয়নের ঘরে তাই তাদের যেতে হবে। কিন্তু পর্ণা তাকে বলে একটু অপেক্ষা করে যেতে। তখনই সকলে আসে অয়নকে বলে এইভাবে বাবা বেঁচে থাকতেও তার শ্রাদ্ধ করছে সে, তার বিরুদ্ধে মানহানির মামলা করা হবে কিন্তু অয়ন বলে সে আবার বেরিয়ে আসবে যার কাছে টাকা আছে সে সব করতে পারবে। তখন সে নাচতে শুরু করে আর আসনে পা লেগে সে পরে যাবে সেই সময় সে সামনে থাকা তুলসী মন্দিরটা ধরে নেয়। সেটা দেখেই সন্দেহ হয় পর্ণার। সে দেখে তুলসী গাছ শুকনো আর মাটির গড়া নড়বড়ে।

আরো পড়ুন: বিপাশা হ‌ও শিমুল নয়! আত্মমর্যাদা বজায় রেখে বাড়ি ছাড়ল বিপাশা, কিন্তু পরজীবীর মতো এখনও শ্বশুরবাড়িতেই পড়ে র‌ইল শিমুল!

সে থামতে বলে পুলিশকে এবং বলে তুলসী মন্দিরের নিজেই টাকা আসে। সেটা শুনেই ভয় পেয়ে যায় অয়ন আর মৌমিতা। তারা পুলিশকে আটকানোর চেষ্টা করলেও তারা কোনও কথা শোনে না আর তুলসী মন্দির সরিয়ে দেখে টাকা। অখিলেশ দত্ত নেচে বলেন টাকা পেয়েছে। আর এদিকে সব লোকে মিলে জুতোর মালা পড়ায় অয়নকে। সকলেই তাকে জুতোর বাড়ি মারে তখন অয়ন মনে মনে বলে এই অপমানের বদলা আমি নেব পর্ণার থেকে। তাহলে কি মনে হয় আপনাদের কি করবে এবার অয়ন পর্ণার থেকে বদলা নেওয়ায় জন্য?

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী।