Connect with us

    Bangla Serial

    Neem Phuler Modhu: পুলিশ হাজতে ঢোকানোর আগেই সৃজন পালাল পর্ণাকে নিয়ে! কালকের দুর্ধর্ষ পর্ব ফাঁস

    Published

    on

    neem phuler modhu

    এই বছরের শেষ টিআরপিতে ব্যাপক খেল দেখিয়েছে নিম ফুলের মধু (Neem Phuler Modhu)। প্রথম স্থানে এই সিরিয়াল। বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে ব্যাপক টিআরপি দখল করছে নিম ফুলের মধু। আসলে বর্তমানে সিরিয়ালে গল্পের যে ট্র্যাক চলছে সেটা বেশ জমজমাট। কারণ নায়িকা কিছু না করেই ভিলেনের চক্রান্তে যাবে জেলে। তাই সেটা হিট তো হবেই।

    শুরু থেকে এখন পর্যন্ত যে গল্প এগিয়েছে তাতে অনেক রকম পরিবর্তন এসেছে। পর্ণা একাধিক মানসিকতার মেয়ে কিন্তু এক রক্ষণশীল পরিবারে এসেছে সে বিয়ে হওয়ার পর। তবুও মানিয়ে গুছিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। কিন্তু আগে থেকেই তার শাশুড়ি তাকে পছন্দ করত না। আর ছিল জেঠু, ভাসুর, জা যারা পর্ণার বিপরীতে। তবে ঠাম্মি পুরোনো যুগের মানুষ হলেও তার চিন্তা ভাবনা একেবারে আধুনিক যা বেশ শিক্ষনীয়ও বটে। তাই তার নির্দেশেই দত্তবাড়িতে বেশ কিছু পরিবর্তন হয়েছে নিয়মে আর পর্ণার ইচ্ছে প্রাধান্য পেয়েছে বরাবর। স্বামী সৃজন তাকে ভালোবাসলেও সে মায়ের কোলের ছেলে হয়ে থেকে গেছে।

    তবে পর্ণা এসে নিজের স্বামীকেও “বাবু” তকমা থেকে বের করে এনেছে। সৃজন নিজেও এখন নিজের স্ত্রীকে বোঝে এবং তার পাশে দাঁড়ায়। তবে মাঝে এল পর্ণার বন্ধু ইশা যার সঙ্গে পর্ণার শত্রুতা আছে। সে আসতেই সবকিছু নিজের বশে আনতে চাইল পুরনো শত্রুতা মেটাতে। পর্ণা বাধা দিলেও বেশ কিছু জায়গায় তাকে ইশাকে আটকাতে গিয়ে হোচট খেতে হয়েছে। তবে ইশা সৃজনকে নিজের দখলে করে নেয়। বিয়ে অবধি এগিয়ে গেলেও শেষ পর্যন্ত সৃজন আর ইশাকে বিয়ে করতে পারেনি বরং পর্ণাকেই মণ্ডপে আবার সিঁদুর পরিয়ে দেয়।

    তবে এবার রুচিকে নিয়ে হয়েছে সমস্যা যে আবার পর্ণার বন্ধু হওয়ার পাশাপাশি পর্ণার ছোট জা। এই সম্পর্ক কেউ না মানলেও পর্ণা বন্ধু আর দেওরের ভালোবাসাকে গুরুত্ব দিয়ে তাদের বিয়ে দিয়েছে। আর এরপরেই ইশা তাকে বিপদে ফেলতে বড় প্ল্যান করে। ইশা আর পর্ণা সেই ফাঁদে পড়ে যায়। শেষে দেখান হয় ইশা মারা গেছে পর্ণার গুলি খেয়ে।

    আরও পড়ুনঃ সত্যি সত্যি প্রেমে পড়েছে মিঠাই! কী বলছে দেবের নায়িকা সৌমিতৃষা?

    সিরিয়ালের আগামী পর্বের আপডেট এবার চলে এলো সামনে। আগামী পর্বে দেখা যাবে যে পর্ণাকে কোর্টে তোলা হয়েছে। এরপর বিচারকের রায় অনুযায়ী আলোকপর্ণা দত্তের জামিন খারিজ হয়ে গেল। এর পাশাপাশি তাকে সাত দিন পুলিশের হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেওয়া হল। পর্ণা খুব ভয় পেয়ে যায়। পুলিশ যখন তাকে গাড়িতে তুলতে যাবে তখন তারা হাঁটিয়ে নিয়ে আসতে থাকে পর্ণাকে। ঠিক তখনই সেখানে বাইক নিয়ে হাজির হয় সৃজন। স্ত্রীকে বলে পর্ণা উঠে পড় উঠে পড়। পর্ণা সৃজনের বাইকের পেছনে তাড়াতাড়ি উঠে পড়ে। আর সৃজন বউকে নিয়ে প্রাণপণে পালায়। এদিকে পুলিশ এবং সাংবাদিকরা তাদের পিছু ধাওয়া করে।