জয়েন গ্রুপ

বাংলা সিরিয়াল

এই মুহূর্তে

Bangla Serial

Slot Change: টিআরপিতে থেকেও আসন্ন ধারাবাহিক ‘ফুলকি’র জন্য স্লট হারালো জি বাংলার জনপ্রিয় এই ধারাবাহিক! মাথায় হাত দর্শকদের

বছরের প্রথম থেকেই শুরু হয়েছে একাধিক নতুন ধারাবাহিক। বন্ধও হয়েছে অনেক পুরোনো ধারাবাহিক। এরমধ্যে কিছু মেগার গল্পে এসেছে নতুন নতুন ট্যুইস্ট। নতুন মেগা আসায় পাল্টাচ্ছে সম্প্রচারের সময়ও। বর্তমানে ধারাবাহিকগুলো টিকে রয়েছে টিআরপির উপর। যার টিআরপি যত বেশি, সেই ধারাবাহিক তত বেশিদিন স্থায়ী থাকে। আর টিআরপিতে তলানিতে গেলেই ইতির খাতায় নাম লেখাতে হয় সেই ধারাবাহিককে।

বলাই যায়, বর্তমানে ধারাবাহিকগুলোর মধ্যে কম্পিটিশনটা খুব কঠিন হয়ে পড়েছে। সম্প্রতি জি বাংলার আসতে চলেছে একটি নতুন ধারাবাহিক ‘ফুলকি’। ইতিমধ্যে ধারাবাহিকের প্রোমো এসেগিয়েছে। জানা যাচ্ছে, ‘মিঠাই’ ধারাবাহিকের পরিবর্তে আসবে এই নতুন ধারাবাহিক। এমনকি ‘মিঠাই’এর সেটও দখল করে নিয়েছে ‘ফুলকি’।

‘ফুলকি’ আসার সাথে শুধুই ‘মিঠাই’ বন্ধ হচ্ছে তাই নয়, আরও এক ধারাবাহিক তার স্লট হারাচ্ছে। জানা গিয়েছে, মিঠাই’এর পরিচালক রাজেন্দ্রপ্রসাদই এই নতুন ধারাবাহিকের পরিচালক। উল্লেখ্য, উক্ত ধারাবাহিকে নায়কের রোলে থাকছেন সোমরাজ মাইতিকে। মূলত এই গল্প বক্সিংকে কেন্দ্র করেই করা হয়েছে। ধারাবাহিকের নায়িকা হিসেবে থাকছে মিষ্টি একটি নবাগতা অভিনেত্রী দিভ্যানি মন্ডল। প্রথম প্রোমো শ্যুটে দেখা যায়, হাতে গ্লাভস পরে দাঁড়িয়ে আছে নায়ক মাঠে।

গল্পের নায়িকা বক্সিংয়ে টক্কর দেয় ছেলেদের। নায়িকার রয়েছে হাঁপানির সমস্যা কিন্তু প্রাইজ মানি ১০ হাজার টাকার জন্য অংশ নেয় এলাকার বক্সিং কম্পিটিশনে। যাতে সেই টাকা দিয়ে মায়ের ডায়ালিসিস করাতে পারে। শীঘ্রই সামনে আসতে চলেছে ধারাবাহিকের দ্বিতীয় প্রোমো। এবার শোনা গেল, ফুলকির জন্য আরেক ধারাবাহিক তার স্লট হারাচ্ছে, নাম ‘খেলনা বাড়ি’। যেটি জি বাংলায় সন্ধ্যা ৬টা ৩০ এ সম্প্রচারিত হয়। ‘ফুলকি’ এলে সেই স্লটে আর সম্প্রচার হবে না ‘খেলনা বাড়ি’।

‘খেলনা বাড়ি’ যখন এসেছিল তখন ‘পিলু’ তার স্লট হারিয়েছিল। তখন থেকে ৬টা ৩০ এ সম্প্রচারিত হত ‘খেলনা বাড়ি’। এবার ফুলকি আসায় উক্ত ধারাবাহিক তার স্লট হারালো। শোনা যাচ্ছে, জুন থেকে সন্ধ্যা ৬ টায় সম্প্রচারিত হবে এই ধারাবাহিক আর ৬টা ৩০ এ সম্প্রচারিত হবে ‘ফুলকি’। বর্তমানে ‘খেলনা বাড়ি’তে মিতুল – ইন্দ্র আর তার ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে গল্প এগোচ্ছে। তবে ধারাবাহিকটি জনপ্রিয় হলেও টিআরপির স্কোর খুব কম।

Rimi Datta

রিমি দত্ত কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর। কপি রাইটার হিসেবে সাংবাদিকতা পেশায় চার বছরের অভিজ্ঞতা।