Bangla Serial

ওজন বাড়ছে! চিন্তায় রয়েছেন আপনি? পাতে রাখুন এই বিশেষ চাটনি, কমবে ওজন! রইল রেসিপি

শেষপাতে চাটনি খেতে ভালোবাসেন অনেকেই। সে পাতে মাছ পড়ুক বা কষা মাংস, শেষ চাটনি না থাকলেও যেন মনে হয় শেষ হয়নি আজকের মেন্যু। তবে যারা ওজন নিয়ে সচেতন তারা সাধারণত এড়িয়েই চলে চাটনিকে। কারণটাও খুবই সাধারণ। চাটনি থাকে অনেকটা পরিমাণে চিনি, যা একটি অভর্থ কারণ হয়ে থাকে আমাদের শরীরের ওজন বাড়ানোতে।তবে এমন অনেক চাটনি আছে খেতে থাকে ওজন বাড়ার সম্ভাবনা।

তবে জানেন কি! এমনও অনেক ফল আছে যেগুলো খেলে ওজন বাড়বে না আপনারা বরং কমে যেতে পারে। হ্যাঁ কথাটা শুনে অবাক লাগলেও চিকিৎসা শাস্ত্রে। এবং সমীক্ষায় উঠে এসেছে এমনটাই। জানা গেছে এই চাটনি খেলে নাকি ওজন কমবে আপনাদের। তবে জানেন কি এই চাটনি বানানোর জন্য আপনাদের কোন বিশেষ খাটনি করতে হবে না খুব সহজেই আপনারা বানাতে পারবেন চাটনিগুলো।

আপেলের চাটনি: আপেলের চাটনি হয়তো আপনারা অনেকেই খেয়েছেন। তবে এইবার লেবুর রস, দারুচিনির গুঁড়ো, সেদ্ধ আপেল আর জায়ফল দিয়ে বানিয়ে ফেলুন এই বিশেষ চাটনি। আপেল রয়েছে ভরফুর ফাইবার আর দারুচিনি ফ্যাট কমাতে সাহায্য করে আপনাদের।

আপেল-দারুচিনির চাটনি- আপেলের চাটনি অনেকেই খেয়েছেন। এবার সেদ্ধ আপেলের সঙ্গে জায়ফল, দারুচিনি গুঁড়ো, লেবুর রস দিয়ে বানিয়ে ফেলুন আপেল-দারুচিনির চাটনি। ফাইবার-সমৃদ্ধ আপেল এবং ফ্যাট-বার্ন দারুচিনি ওজন কমাতে সাহায্য করে

রসুনের চাটনি: প্রথমেই বলে রাখি রসুন আমাদের শরীরের ব্যাথার উপশমের জন্য খুবই উপকারী। শুনতে একটু অদ্ভুত লাগলেও এক কোয়া কাঁচা রসুন যদি খাওয়ায় যায় তবে জ্বরের গা হাত পা ব্যাথা থেকে রেহাই পাওয়া যায় দ্রুত। তবে তাছাড়াও রসুন কিন্তু ওজন কমাতেও বিশেষ উপকারী। এবার আসি রেসিপিতে, রসুনের চাটনি বানাতে কয়েক কোয়া রসুন নিয়ে তাতে সর্ষের বীজ, লবঙ্গ, লঙ্কার গুঁড়ো, শুকনো আমের গুঁড়ো নিয়ে বানিয়ে ফেলুন রসুনের চাটনি।

রসুনের চাটনি- রসুনের কয়েকটি কোয়ার সঙ্গে লবঙ্গ,সর্ষের বীজ, শুকনো আমের গুঁড়ো, লাল লঙ্কা গুঁড়ো মিশিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন সুস্বাদু রসুনের চাটনি। রসুন ফ্যাট কম করতে কার্যকরী। তাই শেষ পাতে রসুনের চাটনি খেলে দ্রুত কমবে ওজন

টমেটোর সালসা: টমেটোর সঙ্গে চুনের রস, পেঁয়াজ, সামান্য ধনেপাতা ব্যাস এই উপকরণ দিয়ে সহজেই বানিয়ে ফেলুন এই সুস্বাদু রেসিপি টমেটোর সালসা। টমেটো আমাদের ওজন করতে সাহায্য করে। স্ন্যাক্সের সঙ্গে এই টমেটোর সালসা খেতে কিন্তু দারুন লাগবে। তাই এটি খেলে আপনাদের ওজন বাড়বে না বরং উল্টে কমবে।

টমেটো সালসা- টমেটোর সঙ্গে চুনের রস, ধনেপাতা, পেঁয়াজ দিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন টমেটো সালসা। স্ন্যাক্সের সঙ্গে এটি খেতে দারুণ লাগবে। এই চাটনি খেলে ওজন বাড়বে না, বরং দ্রুত ওজন কমবে

বেল শস: গরমকালে বেল একটি অতি জনপ্রিয় ফল। অনেকেই গরমে বেলের শরবত খান শরীরকে ঠান্ডা রাখার জন্য এবং পেট পরিষ্কার রাখার জন্য। তবে এবার চটপট বানিয়ে ফেলুন বেলের এই রেসিপি। বেলের সঙ্গেই গোলমরিচ গুঁড়া এবং লঙ্কার গুঁড়ো মিশিয়েও বানিয়ে ফেলুন বেলের শস। রুটির সঙ্গে এই শস খেতে কিন্তু দারুন লাগে আর আপনাদের ওজন কমাতেও সাহায্য করবে বেল।

বেল শস- গরমের অন্যতম জনপ্রিয় ফল, বেল। শরীর ঠান্ডা রাখতে ও পেট পরিষ্কার করতে খুব কার্যকরী বেলের শরবৎ। বেলের সঙ্গে লঙ্কা গুঁড়ো, গোলমরিচ মিশিয়ে বানিয়ে ফেলুন বেল শস। এটি রুটির সঙ্গে দারুণ খেতে লাগে। ফ্যাট-বার্ন বেল ওজন কমাতেও সাহায্য করে

লাল চিনাবাদামের চাটনি: এই লাল চিনাবাদামের চাটনি বানানোর জন্য চিনাবাদাম ছাড়াও লাগবে সর্ষের তেল, সাধারণ ঘরোয়া মশলা, টমেটো, পেঁয়াজ, রসুন। চিনাবাদামের এই রেসিপিটি আমাদের শরীরের ফ্যাট ও ক্যালরির পরিমাণ থাকে খুব কম তাই এটি আপনাদের ওজন বৃদ্ধি করবে না আর ধোসা ইডলি এবং স্ন্যাক্সের সঙ্গে খেতেও লাগবে দারুন।

লাল চিনাবাদামের চাটনি- নাম থেকেই বোঝা যাচ্ছে, এটা চিনাবাদাম থেকে তৈরি। চিনাবাদামের সঙ্গে টমেটো, পেঁয়াজ, রসুন, সর্ষের তেল এবং সাধারণ ঘরোয়া মশলা দিয়ে তৈরি এই চাটনিতে ফ্যাট ও ক্যালোরি খুব কম। ফলে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে ইডলি-ধোসা বা অন্য স্ন্যাক্সের সঙ্গে খেতে পারেন এই খাবার

পেঁপের চাটনি: আবার ভাবছেন পেঁপের চাটনিতে কিভাবে আমাদের ওজন কম থাকবে কারণে এতে তো চিনি দিতে হবে, তাই না! আজ্ঞে না! চিনি নয়, বরং মধু দিয়েই বানিয়ে ফেলুন পেঁপের চাটনি। এতে আপনাদের ওজন বাড়বে না বরং ভরপুর ফাইবার সম্বৃদ্ধ পেঁপে আপনাদের ওজন কমাতে এবং হজম শক্তি বাড়াতে সাহায্য করবে। আর চিনি মতো ওজনও বাড়াবেন না মধু তবে আপনিও সুস্থ থাকবেন।

পেঁপের চাটনি- চিনির বদলে মধু দিয়ে তৈরি পেঁপের চাটনিও ওজন বাড়ায় না। বরং ফাইবার-সমৃদ্ধ পেঁপে ফ্যাট ঝরাতে এবং হজমক্ষমতা ঠিক রাখতে সাহায্য করে। ফলে মধু-চিনির চটানি ওজন বাড়ায় না

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী।