Bangla Serial

আটকে গেল ‘মেঘনীলের’ বিবাহ বিচ্ছেদ! নীলের হাত ধরে গাঙ্গুলি বাড়িতে ফিরবে মেঘ! দারুণ খুশি দর্শকরা

কিছুদিন আগেই জল্পনার তুঙ্গে ছিল ‘ইচ্ছে পুতুল’ ধারাবাহিকটি। শোনা গিয়েছিল, বন্ধ হয়ে যেতে পারে ‘ইচ্ছে পুতুল (Icche Putul) ‘। কম রেটিং-এর জন্যই এই জল্পনার সৃষ্টি হয়েছিল। সঙ্গে আগুনে ঘৃতাহুতির কাজ করেছিল জি বাংলার আসন্ন ধারাবাহিকের খবরটি। এই সব জল্পনার অবসান হতে না হতেই, মোড় ঘুরলো ধারাবাহিকের। আটকে গেল ‘মেঘনীলের’ বিচ্ছেদ প্রক্রিয়া।

মেঘ আর ময়ূরী, এই দুই বোনের গল্প নিয়ে শুরু হয়েছিল জি বাংলার ধারাবাহিক ইচ্ছে পুতুল। প্রথমে ময়ূরীর সঙ্গে বিয়ে হওয়ার কথা হয়েছিল সৌরনীলের। কিন্তু পরবর্তীকালে,বিভিন্ন কারণের জেরে মেঘের সঙ্গে বিয়ে হয়ে যায় সৌরনীলের। বিয়ের পর থেকেই নানা রকম ভাবে, মেঘকে অপদস্থ করার চেষ্টা করেছে ময়ূরী। সঙ্গে নীলকেও বারংবার দেখা গিয়েছে নিজের স্ত্রীকে ভুল বুঝে অপমান করতে। যা দেখতে দেখতে একেবারেই বিরক্ত হয়ে উঠেছিলেন দর্শকরা।

আরো পড়ুন: নীলের আত্মত্যাগ দেখে ডিভোর্স আটকে দিল মেঘ! তবে কি মেঘ-নীলের শুভ মিলনেই শেষ হবে ইচ্ছে পুতুল? ভাগ্যে কি রয়েছে ময়ূরীর?

বর্তমানে এই ধারাবাহিকের পর্বে দেখানো হচ্ছিল মেঘ ও নীলের বিচ্ছেদ প্রক্রিয়া। ধারাবাহিকের আজকের পর্বে দেখানো হবে বিচ্ছেদদের জন্য মেঘ ও নীল তাদের পরিবার নিয়ে কোর্টে উপস্থিত হয়েছে। নীলের বোন গিনি নীলকে আরেকবার এই ব্যাপারে ভেবে দেখতে বললে নীল জানিয়ে দেয় যে সে আর কোনও ভাবেই মেঘকে বিরক্ত করতে চায় না। তাই, বিচারপতির সামনেও সে প্রত্যেকটি দোষ নিজের ঘাড়ে চাপিয়ে নেয়।

অন্যদিকে, মেঘও মনে মনে চায় না তাদের বিচ্ছেদটা হোক। তাদের কথাবার্তা ও ভঙ্গিমা দেখে বিছারপতি তাদের আরেকটি সুযোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন এবং রায় দেন তাদের ছয় মাস একসঙ্গে থাকার। বিচারপতির এই রায়ে মনে মনে মেঘও বেশ খুশি হয়। এবং নীলের মুখেও হাঁসি ফুটে ওঠে। মেঘও রাজি হয় নীলকে আরও একটি সুযোগ দিতে। সুতরাং, ধারাবাহিকের পরবর্তী পর্বগুলিতে দেখা যেতে পারে গাঙ্গুলি বাড়িতে মেঘনীলের একসঙ্গে থাকার মুহূর্তগুলি।

Rimi Datta

রিমি দত্ত কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর। কপি রাইটার হিসেবে সাংবাদিকতা পেশায় চার বছরের অভিজ্ঞতা।