জয়েন গ্রুপ

বাংলা সিরিয়াল

এই মুহূর্তে

Bangla Serial

Khelna Bari: শোচনীয় অবস্থা গুগলির, ভর্তি হাসপাতালে! শ্বশুরবাড়ির গোপন রহস্য ফাঁস! গুগলির এরূপ অবস্থার জন্য দায়ী আসল অপরাধী এবার মিতুলের হাতে! ধামাকাদার প্রোমো

জি বাংলার (Zee Bangla) জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘খেলনা বাড়ি’ (Khelna Bari)। বেশকিছুদিন ধরেই শোনা যাচ্ছে, ধারাবাহিকটি শেষের পথে এগোচ্ছে। তবে এর মাঝেই এক নতুন মোড় নিয়েছে ধারাবাহিক। কিছুদিন আগেই ধারাবাহিকে এসেছে গুগলির (Googly) বিয়ের ট্র্যাক। আর সেখান থেকেই একের পর এক আজব কাণ্ডের শিকার হচ্ছে গুগলি। যদিও মা মিতুল (Mitul) সেসব বিপদের অগ্রিম আভাস পেয়ে গুগলিকে সাবধান করে দিয়েছে।

শ্বশুরবাড়ি ঢুকতে না ঢুকতেই একের পর বিপদের মুখে পরে গুগলি। দেখা যায়, যে আলতায় পা দিয়ে গৃহপ্রবেশ করতে হয়, সেই আলতায় পাওয়া যায় কাঁচের টুকরো, ল্যাটা মাছ ধরতে গিয়ে দেখে সিংই মাছ। যদিও এসকল বিপদরের আভাস আগেই পেয়েছিল মিতুল, তাই সে প্রতিমুহূর্তে গুগলিকে সাবধান করে গিয়েছে। এটাও জানা গিয়েছে, গুগলির স্বামী সঞ্জয়ের এটা দ্বিতীয় বিয়ে। আর আগের বৌ নিয়ে রয়েছে এক রহস্যও।

পাশাপাশি শ্বশুরবাড়ির কিছুজন গুগলিকে বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে বলে, যা শুনে অবাক হয় মিতুল ও গুগলি। মিতুলের মনে সন্দেহ ঢোকে, গুগলির শ্বশুরবাড়িতে কিছু রহস্য লুকিয়ে রয়েছে। পাশাপাশি গুগলির শাশুড়িকেও সন্দেহজনক লাগে। যদিও শাশুড়ি গুগলির বিশেষ খেয়াল রাখে। কিন্তু সেটা কেন? তা এখনও বোঝা যায়নি।

এরপরই ‘খেলনা বাড়ি’র এক ধামাকাদার প্রোমো সামনে এল। দেখা যায়, গুগলি অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি। ডাক্তার জানায়, গুগলির শরীর খুবই সঙ্কটজনক। যা শুনে গুগলির স্বামী ভয় পেয়ে যায়। সে মিতুলকে বলে, কোনোরকমে গুগলিকে সুস্থ করে দিতে। মিতুলকে সে জানায়, গুগলির স্বামীর আগের স্ত্রীও এভাবে মারা গিয়েছিলো। কিন্তু সে গুগলিকে হারাতে চায় না।

সঞ্জয়ের মুখে এমন কথা শুনে মিতুল অবাক হয়ে যায়। তার মনে সন্দেহ তৈরী হয়, হয়তো গুগলির শ্বশুরবাড়ির কেউ গুগলির এই অবস্থার জন্য দায়ী। এরমাঝে মিতুল স্বপ্ন দেখে, তার সামনে গুগলির শ্বশুরবাড়ির একের পর একজনের ছবি ভেসে ওঠে। তবে মিতুল কি পারবে এই রহস্য সমাধান করতে? মিতুল কি গুগলিকে এই সঙ্কটজনক অবস্থা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারবে? আসছে ধারাবাহিকের ধামাকাদার পর্ব।

Rimi Datta

রিমি দত্ত কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর। কপি রাইটার হিসেবে সাংবাদিকতা পেশায় চার বছরের অভিজ্ঞতা।