Food

নাম মাত্র তেলে, এই গরমে বানিয়ে ফেলুন কাঁচা আম দিয়ে এই সুস্বাদু ডাল, রইল রেসিপি

এসেছে গ্রীষ্মকাল। অর্থাৎ ফলের রাজা আমের সময়। এই সময় পাকা হোক বা কাঁচা আম থাকলেই মন জুড়িয়ে যায় শরীর ও মন। আমের তৈরি যে কোন পদই মন জুড়িয়ে দেয় সকলে। অনেকেই আছেন যাদের এই গরম মধ্যাহ্ন ভোজের পর শেষ পাতে আমি না থাকলে একবারেই ভালো লাগে না। তাছাড়াও কাঁচা আম, নুন, লঙ্কা, কাশন্দি দিয়ে বানানো চাট খেতে ভালোবাসেন না এমন মানুষ লাখে একটা। তবে এর পাশাপাশি আবার অনেকে ডাল এবং নানা সবজিও ব্যবহার করেন।

এই গরমে কাঁচা আমের ডাল সকলেরই ভীষণ প্রিয়। প্রসঙ্গত, কাঁচা আম হল ভিটামিন এ, সি, কে এবং ভিটামিন বি৬ ভরপুর সমাহার। পরিপাক জনিত সমস্যা যেমন বমি বমি ভাব, অম্বল, কোষ্ঠকাঠিন্য, অম্লতা, মর্নিং সিকনেস, ওজন কমানো, দৃষ্টিশক্তি জনিত সমস্যার ক্ষেত্রে কাঁচা আম অত্যন্ত উপকারী। এছাড়াও এই গরমে শরীরকে ঠান্ডা করতে, ডিহাইড্রেশন প্রতিরোধ করতে, কোলেস্টেরলের কমাতে, কার্ডিওভাসকুলার জাতীয় রোগ প্রতিরোধ করতে, লিভার সুস্থ রাখতে এবং নানা রোগ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে কাঁচা আম।

উপকরণ:

আমের ডালের এই রেসিপি বানানোর জন্য প্রয়োজন পড়বে, ২৫০ গ্রাম ডাল মুসুর ডাল, ২ টো কাঁচা আম, ৪-৫ টা কাঁচা লঙ্কা, হলুদ গুঁড়ো, তেজপাতা, সামান্য জিরে গুঁড়ো, শুকনো লঙ্কা গুঁড়ো, গোটা সর্ষে, ১ কাপ পেঁয়াজ কুচি, স্বাদ অনুযায়ী লবণ, সামান্য পরিমাণ অনুযায়ী তেল এবং পরিমাণ অনুযায়ী জল

প্রণালি:

প্রথমে কাঁচা আমগুলো সরু এবং লম্বা করে কেটে নিন। তারপর আমের টুকরোগুলোকে ভালোভাবে ধুয়ে নুন এবং হলুদ মাখিয়ে নিন। এরপর গ্যাস জ্বালিয়ে জল গরম করে আমের টুকরোগুলো দিয়ে হালকা ভাপিয়ে নিন। তারপর একটি পাত্রে কাঁচা আমের টুকরোগুলোকে নামিয়ে নিন। আর আরেকটি গ্যাসে মুসুরির ডাল সেদ্ধ করে নিন। এরপর আরেকটি গ্যাসে কড়াইয়ে চাপিয়ে তাতে দিয়ে দিন সামান্য পরিমাণে তেল।

তেল গরম হয়ে এলে তাতে শুকনো লঙ্কা, তেজপাতা এবং সামান্য পরিমাণে গোটা সর্ষে ফোড়ন দিয়ে নিন। ফোড়ন দেওয়া হয় গেলে এবার কড়াইয়ে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে দিন। যদিও এক্ষেত্রে পেঁয়াজটা অপশনাল আপনারা যদি নিরামিষ ডাল বানাতে চান তাহলে পেঁয়াজ নাও দিতে পারেন। সেক্ষেত্রেও এই ডাল খেতে দারুণ সুস্বাদু লাগবে। তারপর হালকা করে ভেজে নিন পেঁয়াজ কুচিগুলো। এরপর পেঁয়াজ হালকা লালচে হয়ে এলে আগে থেকে সেদ্ধ করে রাখা মুসর ডাল কড়াইয়ে দিয়ে দিন।

এরপর কড়াইয়ে দিয়ে দিন পরিমাণ অনুযায়ী জল। তারপর কড়াইয়ে নুন এবং গোটা কাঁচা লঙ্কা দিয়ে দিন। ডাল বলক হয়ে উঠলে তার মধ্যে আগে থেকে ভাপিয়ে রাখা কাঁচা আমের টুকরোগুলো দিয়ে দিন। এরপর হালকা আঁচে কয়েক মিনিট ফুটিয়ে নিন। তারপর যখন দেখবেন কাঁচা আমের টুকরোগুলো ডালের সঙ্গে মিশে যাচ্ছে তখন গ্যাস থেকে নামিয়ে নিন। ব্যস তৈরি আপনাদের আম-ডাল। এই প্রচণ্ড গরমে মধ্যাহ্ন ভোজনে কাঁচা আম দিয়ে এই মুসুর ডাল এবং সঙ্গে ভাত ব্যস জমিয়ে দেবে আপনার মধ্যাহ্ন ভোজ।

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী। আমার লেখা আরও পড়তে এখানে ক্লিক করুন।