Food

একঘেয়ে মটনের ঝোল আর কষা খেয়ে বিরক্ত লাগছে! নৈশভোজের জন্য বানিয়ে নিন মটন শাহী কোর্মা! দেখে নিন রেসিপি

শারীরিক সমস্যাকে চোখ রাঙিয়ে মাঝেমধ্যে মটন খেতে কারনা ভালো লাগে। গরম গরম তুলতুলে মটনের সঙ্গে গরম ভাতই যথেষ্ট নৈশ ভোজের খাওয়ার জমিয়ে দেওয়ার জন্য। সেকোন উৎসব বা বিয়ে বাড়ি কিংবা জন্মদিন অথবা ছুটির দিন মধ্যাহ্ন ভোজনে মটন নেই, সে আবার হয় নাকি! তবে প্রতিবারই তো পাতে দিতে হয় মটনের ঝোল বা কষা, একবার যদি করা যায় কিছু নতুন! এবার বাড়ির সময়ের সকলের জন্য বানিয়ে ফেলুন মটনের শাহী কর্মা। তবে তার আগে চলুন যেতে নিই কি কি গুন থাকে মটনে?

মটনে থাকে উৎকৃষ্ট মানের প্রোটিন। তাই মটন খেলে অনায়াসেই শরীরে প্রোটিনের ঘাটতি মেটানো সম্ভব। এছাড়াও মটনে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আয়রন, ফলত রক্তাল্পতা মতো জটিল রোগের আক্রান্ত মানুষ যদি মাঝেমধ্যে মটন খাই তাহলে সেই ব্যাক্তির উপকার মিলবে এটা বলাই যায়। তবে তাছাড়াও মটনে রয়েছে ক্যালসিয়াম, ভিটামিন বি১২, ফসফরাস সুতরাং মটনকে শুধু শুধু ক্ষতিকারক ভাবার কোন প্রযোজনা নেই। তবে বয়স চল্লিশ পেরোনোর পর একটু সাবধানে এবং বুঝে।

কারণ মটন মানেই কিন্তু রেডমিট। এতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে কোলেস্টেরল এবং স্যাচুরে়টেড ফ্যাট তাই ভালো লাগলেও বয়স চব্বিশের উর্ধ্বে হলে প্রতি সপ্তাহে মটন না খাওয়াই ভালো এর চেয়ে বরং মাসের ২,৩ বার খেতে পারেন তবে সবটাই শরীর বুঝে। তাহলে চলুন দেখে নিই কি কি উপকরণ লাগছে মটনের শাহী কর্মা বানানোর জন্য।

উপকরণ:

মটন: ৫০০ গ্রাম
পেঁয়াজ কুচি: আধ কাপ
পেঁয়াজ বাটা: চার টেবিল চামচ
আদা বাটা: ১ টেবিল চামচ
রসুন বাটা: ২ টেবিল চামচ
টমেটো: ১ টা
কাঁচা লঙ্কা বাটা: ২ টেবিল চামচ
টকদই: আধ কাপ
পোস্ত: ১ টেবিল চামচ
চারমগজ : ২ টেবিল চামচ
খোয়া ক্ষীর: আধ কাপ
কাজু: ১০ টা
চিনি: আধ চা চামচ
ফ্রেশ ক্রিম: ২ টেবিল চামচ
সাদা তেল: ৪- ৫ টেবিল চামচ
গরম মশলা গুঁড়া – আধ চা চামচ
ঘি: পরিমাণ অনুযায়ী
মিঠা আতর: ২ ফোঁটা
কাশ্মীরি লঙ্কার গুঁড়ো: ১ টেবিল চামচ
ধনে পাতা কুচি: সাজানোর জন্য

আরো পড়ুন: একেবারে ভিন্ন! চটপট বানিয়ে ফেলুন ফলের বীজের চপ- কাটলেট, বানানো খুব সহজ, রইল রেসিপি

প্রণালি:

এবার চলুন দেখি কিভাবে বানাবেন এই মটন শাহী কর্মা। নুন, সামান্য হলুদ, টকদই, লঙ্কা বাটা, রসুন বাটা, আদা বাটা দিয়ে ভালো করে মাখিয়ে নিন মটনটাকে। এবার পোস্ত, চারমগজ আর কাজু বেঁটে নিন একসঙ্গে। তারপর কড়াইয়ে তেল এবং ঘি সমান পরিমাণে নিয়ে নিন পেঁয়াজ কুচি দিয়ে নাড়াচাড়া করুন। পেঁয়াজগুলি সোনালী হয়ে গেলে টমেটো আর পেঁয়াজ বাটা নিয়ে ভালো করে কষিয়ে নিন। তার মধ্যেই মেরিনেট করা মটন দিয়ে ভালোভাবে নাড়াচাড়া করুন। কষাতে থাকুন বেশ কিছুক্ষন। এরপর মশলা থেকে তেল ছাড়তে শুরু করলেই এরমধ্যে কাজু বাটা, চারমগজ বাটা, পোস্ত বাটা দিয়ে আরও কিছুক্ষণ কষিয়ে নিন।

তারপর পরিমাণ মতো নিন দিয়ে চাপা দিয়ে গ্যাস কমিয়ে গ্যাস কমিয়ে রাখুন এবার। মাঝে মধ্যে দেখে নেবেন জল শুকিয়ে এল কিনা। এরপর মাংস সিদ্ধ হয়ে এলে গরম মশলা গুঁড়া, ফ্রেশ ক্রিম, মিঠা আতর, খোয়া ক্ষীর, ধনে পাতা কুচি দিয়ে আঁচ বন্ধ ঢাকা দিয়ে রাখুন। এবার নামিয়ে রুটি, পরোটার সহযোগে গরম গরম পরিবেশন করুন মটনের শাহী কর্মা। একেবারে দারুন।

Ruhi Roy

রুহি রায়, গণ মাধ্যম নিয়ে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতকোত্তর পাশ। সাংবাদিকতার প্রতি টানে এই পেশায় আসা। বিনোদন ক্ষেত্রে লেখায় বিশেষ আগ্রহী। আমার লেখা আরও পড়তে এখানে ক্লিক করুন।